দুর্গাপূজা শুধু হিন্দু সম্প্রদায়ের উৎবসই নয়, এটি আজ সার্বজনীন উৎসব: মৎস্য প্রতিমন্ত্রী

জিএস‌কে শান্ত, স্টাফ ক‌রেসপ‌ন্ডেন্ট , খুলনা : মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী নারায়ণ চন্দ্র চন্দ বলেছেন, শারদীয় দুর্গাপূজা শুধু হিন্দু সম্প্রদায়ের উৎবসই নয়, এটি আজ সার্বজনীন উৎসব। বাংলাদেশ শান্তি প্রিয় দেশ। ধর্ম যার যার উৎসব সবার এ মন্ত্রে উজ্জীবিত হয়ে আমরা সকলে একসাথে এ উৎসব পালন করবো। বাংলাদেশ সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির দেশ। সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির এই ঐতিহ্যকে অক্ষুণ্য রাখতে হবে।
১৩ সে‌প্টেম্বর দুপুরে খুলনা ডুমুরিয়া উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে আসন্ন শারদীয় দুর্গাপূজা-২০১৭ উপলক্ষ্যে সুষ্ঠু, সুন্দর, ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্য ও শান্তিপূর্ণভাবে উদযাপনের লক্ষ্যে মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তি‌নি এসব কথা বলেন।
প্রতিমন্ত্রী বলেন, মিয়ানমারের রোহিঙ্গা শরণার্থীদের আশ্রয় দিয়ে বর্তমান সরকার দৃষ্টান্ত স্থাপন করছে। আমাদের সংবিধানে সকল ধর্ম ও বর্ণের মানুষের সমানাধিকার সুনিশ্চিত করা হয়েছে। ধর্মীয় আচার-অনুষ্ঠান পালনে প্রতিটি সম্পদায়ের মানুষ এদেশে স্বাধীনভাবে পালন করে যাচ্ছে। দুর্গাপূজা এদেশের হাজার বছরের ঐতিহ্য। তিনি বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সকল ধর্মের মানুষকে নিয়ে অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ গড়তে চেয়েছিলেন। বাংলাদেশের মানুষ অসাম্প্রদায়িক। বিগত সময়ের চেয়ে বর্তমানে আইনশৃঙ্খলা অনেক ভাল অবস্থা‌নে রয়েছে। সরকার জ‌ঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাস নির্মূল করে দেশে শা‌ন্তি ফিরিয়ে এনেছে। যারা ধর্মের নামে অসৎ কর্ম করে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর শা‌স্তির ব্যবস্থা রয়েছে। দেশে এখন শান্তির সুবাতাস বইছে। হিংসা-বিদ্বেষ ও জঙ্গিমুক্ত  সমাজ গড়ে তুলতে তিনি সকলকে ঐক্যবদ্ধ থাকার আহ্বান জানান। শারদীয় দুর্গাপূজা উৎসব পালনে প্রতিমন্ত্রী সকলের সহযোগিতা কামনা করেন।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ আশেক হাসানের সভাপতিত্বে সভায় অন্যান্যর মধ্যে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ খান আলী মুনসুর, চুকনগর কলেজের অধ্যক্ষ এবিএম শফিকুল ইসলাম, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ নুর উদ্দিন আল মাসুদ, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সহসভাপতি শাহ নেওয়াজ হোসেন জোয়াদ্দার, জেলা পরিষদের সদস্য সরদার আবু সালেহ, বিভিন্ন ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানবৃন্দ, ডুমুরিয়া প্রেসক্লাবের সভাপতি ও উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার বক্তৃতা করেন। এসময় উপজেলার বিভিন্ন দপ্তরের সরকারি কর্মকর্তা, উপজেলা পুজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক, বিভিন্ন ইউনিয়নের পুজা পরিষদের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক এবং বিভিন্ন মন্দির কমিটির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক উপস্থিত ছিলেন।
সভায় জানানো হয় এবছর ডুমুরিয়া উপজেলায় প্রায় একশত ৯৫টি মন্ডপে দুর্গাপূজা অনুষ্ঠিত হবে। আইনশৃঙ্খলা রক্ষার্থে পুলিশ বাহিনীর পাশাপাশি আনসার বাহিনীও মোতায়েন থাকবে এবং গ্রাম পুলিশ বাহিনী সবসময় কাজ করবে।