‘সব রোহিঙ্গাদের ফেরত নেবে না মিয়ানমার’

আন্তর্জাতিক ডেস্ক- মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে ১৭৬টি গ্রাম এখন জন মানবশূন্য। চলমান সেনা অভিযানে রাজ্য রোহিঙ্গা অধ্যুষিত গ্রামগুলোর বাসিন্দারা পালিয়ে গেছে প্রতিবেশি দেশগুলোয়।

দেশটির প্রেসিডেন্টের দপ্তরের মুখপাত্র জ হাতয়ের বিবৃতি বরাত দিয়ে হিন্দুস্তান টাইমস জানায়, আগস্টে নতুন করে সহিংসতা শুরুর পর রাখাইন রাজ্য থেকে আসা সব রোহিঙ্গাদের ফেরত নেবে না মিয়ানমার সরকার।

জ হাতয় বলেন, রাখাইন রাজ্যের তিনটি শহরতলি এলাকায় সর্বমোট ৪৭১ টি গ্রাম রয়েছে। এর মধ্যে ১৭৬টি গ্রাম এখন জনমানবশূন্য। রাখাইনের আরও ৩৫ গ্রাম থেকেও কিছু কিছু রোহিঙ্গা পালিয়ে গেছে প্রতিবেশী দেশগুলোতে। পালিয়ে যাওয়া বাসিন্দাদের সবাইকে মিয়ানমারে ফিরে আসার অনুমতি দেওয়া হবে না। যাচাইবাছাই করেই মিয়ানমার তাদের গ্রহণ করতে পারে।

মিয়ানমার সরকারের দাবি, গত ২৫ আগস্ট রাখাইনে রোহিঙ্গা বিদ্রোহী জনগোষ্ঠী দুই ডজনের বেশি সেনা ও পুলিশ ক্যাম্পে হামলা চালায়। এর পরই হামলা-নির্যাতন-ধর্ষণের শিকার প্রায় তিন লাখ ৭০ হাজার রোহিঙ্গা মুসলিম বিপদসংকুল পথ পাড়ি দিয়ে বাংলাদেশে চলে আসে।

পালিয়ে আসা বস্তুচ্যুত রোহিঙ্গারা অভিযোগ করেছেন, বৌদ্ধ অধ্যুষিত মিয়ানমারের সেনাবাহিনী পুরুষদের ধরে ধরে নিয়ে হত্যা করছে, নারীদের ধর্ষণ করছে আর মুসলিম অধ্যুষিত গ্রামগুলো জ্বালিয়ে দিচ্ছে।

মুসলিম রোহিঙ্গা বিদ্রোহীরাই বাড়িঘরে আগুন দিচ্ছে—মিয়ানমার সরকারের পক্ষ থেকে এমন দাবি করা হলেও আন্তর্জাতিক বিভিন্ন সংস্থা জানিয়েছে, এরই মধ্যে এই সহিংসতার শিকার হয়ে প্রায় তিন হাজার রোহিঙ্গা প্রাণ হারিয়েছেন।

আরআই