অবশেষে ব্যাট হাসল মোহাম্মদ আশরাফুলের

স্পোর্টস আপডেট ডেস্ক: নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে গত জাতীয় লিগেই ফিরেছিলেন আশরাফুল। কিন্তু তেমন কিছু করতে পারেননি। তবে এবার বাংলাদেশের ঘড়োয়া লিগ গুলোর রান করতে না পারার ব্যর্থতার বৃত্ত থেকে বেরিয়ে অবশেষে ব্যাট হাসল মোহাম্মদ আশরাফুলের। জাতীয় লিগ দিয়েই গত বছর ঘরোয়া ক্রিকেটে ফিরেছিলেন মোহাম্মদ আশরাফুল। তবে ওই মৌসুমে ফেরাটাকে স্মরণীয় করে রাখতে পারেননি এই ব্যাটসম্যান। তবে এবার শুরুটা হল দুর্দান্ত। ঢাকা মেট্রোর হয়ে প্রথম দিনেই দেখা পেয়েছেন সেঞ্চুরির। চট্টগ্রাম ডিভিশনের বিপক্ষে খেলেছেন ১৯৪ বলে ১০৪ রানের অসাধারণ ইংনিংস।

চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা ভালো হয়নি ঢাকা মেট্রোর। ব্যক্তিগত ৫ রানে সাজঘরে ফেরেন ওপেনার শুভ। এরপর দ্রুত আসিফ আহমেদ (১৮) ও মার্শাল আইয়ুব (১১) বিদায় নিলে চাপে পড়ে মেট্রো। সৈকত আলী ৩৮ রান করে বিদায় নিলে চাপ আরও বেড়ে যায় ঢাকার।

এরপরই পঞ্চম উইকেটে মেহরাব হোসেন জুনিয়রের সঙ্গে ১৭৪ রানের জুটি গড়েন আশরাফুল। মেহেদী হাসান রানার বলে উইকেটকিপার সাব্বিরের ক্যাচ হওয়ার আগে ১২ চার ও ২ ছয়ে তুলে নেন দুর্দান্ত সেঞ্চুরি। যা চার বছর পর যে কোন ধরনের ক্রিকেটে প্রথম সেঞ্চুরি আশরাফুলের। প্রথম দিন শেষে ঢাকা মেট্রোর সংগ্রহ ৫ উইকেটে হারিয়ে ২৫৭ রান। মেহরাব জুনিয়র ৬৫ রান নিয়ে অপরাজিত আছেন।

আশরাফুল সর্বশেষ সেঞ্চুরি করেছিলেন ২০১৩ সালে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে গল টেস্টে। ওই বছরই ঘরোয়া লিগে উত্তরাঞ্চলের বিপক্ষে মধ্যাঞ্চলের হয়ে খেলেছিলেন ১৩৩ রানের দারুণ এক ইনিংস।

এছাড়া ন্যাশনাল ক্রিকেট লীগে (এনসিএল) দিনের অন্য খেলায় খুলনা বিভাগের হয়ে নঈম ইসলাম ও ধীমান ঘোষের শতকে খুলনা বিভাগের বিরুদ্ধে উড়ন্ত সূচনা করতে রংপুর বিভাগকে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। তারা দুজনেই সেঞ্চুরি করেছেন।

রংপুর বিভাগের প্রথম দিন শেষ হয় ৮৭.৫ ওভারে ৬ উইকেটে ৩২৫ রান করে। ধীমান ঘোষ ১০৫ বলে ১০৫ রানের ইনিংস খেলেন। নাঈম ১২০ রানে অপরাজিত রয়েছেন। আলমিন হোসেন ও অধিনায়ক আব্দুর রাজ্জাক উভয়ই খুলনা বিভাগের পক্ষে ৩ উইকেট শিকার করেন।

অন্যদিকে রাজশাহীতে, ভেজা আউটফিল্ডের কারণে ম্যাচ দেরি করে শুরু হয়। আম্পায়াররা দিনের খেলা বন্ধ করার আগে, সিলেট বিভাগটি রাজশাহী বিভাগের বিপক্ষে ৫৬.২ ওভারে ১১২/৭ রান করেছে। ইমতিয়াজ হোসেন সর্বোচ্চ ৩৮ রান করেন। মুকতার আলী, সাকলাইন সজিব ও ফরহাদ রেজা প্রত্যেকে ২ টি করে উইকেট নিয়েছেন।