কক্সবাজার কারাগারে মিয়ানমারের দুই ‘গুপ্তচর’

কক্সবাজার প্রতিনিধি: নিজেদের পরিচয় গোপন করে কক্সবাজারের সীমান্ত এলাকায় ছবি তোলা ও রাষ্ট্রীয় গোপন তথ্য সংগ্রহসহ সরকারি কর্মকর্তাদের মিথ্যা তথ্য দেওয়ার অভিযোগে গ্রেপ্তার মিয়ানমারের দুই নাগরিককে জেল হাজতে পাঠিয়েছেন আদালত।

মিনজাওয়ার ও হুকুন লাট নামের দুই মিয়ানমার নাগরিক এখন কক্সবাজার কারাগারে রয়েছেন।

শনিবার দুপুরে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কক্সবাজারের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (এএসপি) আফরুজুল হক টুটুল।

আফরুজুল হক টুটুল জানান, গ্রেপ্তার দুই মিয়ানমার নাগরিক নিজেদের জার্মানির হামবুর্গভিত্তিক ম্যাগাজিন জিও-তে কাজ করেন এবং মিয়ানমার থেকে তারা সংবাদ পাঠান বলে দাবি করেন।

তিনি বলেন, গত বৃহস্পতিবার গ্রেপ্তার এই দুজনকে কক্সবাজার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট রাজীব কুমার দেব’র আদালতে নেওয়া হয়। আদালত আসামিদের জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে জেল হাজতে পাঠিয়েছেন।

টুটুল বলেন, ‘এর আগে গত ১৩ সেপ্টেম্বর কক্সবাজারের উখিয়ার সীমান্ত এলাকা থেকে সন্দেহজনকভাবে ঘুরাফেরার সময় মিয়ানমারের এ দুই নাগরিককে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। তারা সাংবাদিক পরিচয় গোপন রেখে ট্যুরিস্ট ভিসায় বাংলাদেশে এসে কক্সবাজারের বিভিন্ন সীমান্ত এলাকা থেকে ছবি তোলা ও তথ্য সংগ্রহসহ সরকারি কর্মকর্তাদের মিথ্যা তথ্য প্রদান করে। এসব অভিযোগ পুলিশ তাদের গ্রেপ্তার করে।’

পরে তাদের বিরুদ্ধে কক্সবাজার সদর থানায় সংশ্লিষ্ট আইনে মামলা করে আদালতে পাঠানো হয় এবং আদালত তাদের জামিন নামঞ্জুর করে জেল হাজতে পাঠিয়েছেন বলে জানান এএসপি টুটুল।

আসামি পক্ষের আইনজীবী ব্যারিস্টার জ্যোতির্ময় বড়ূয়া বলেন, ‘আসামিদের জামিন চেয়ে আদালতের কাছে আবেদন জানানো হয়েছিল। আদালত তা নামঞ্জুর করে জেল হাজতে পাঠিয়েছে। আমরা এই আদেশের বিরুদ্ধে উচ্চ আদালতে যাব।’

এ ছাড়া আগামী মঙ্গলববার কক্সবাজার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের কাছে আবারো জামিন আবেদন করা হবে জানিয়ে জ্যোতির্ময় বলেন, ‘এতে তাদের জামিন পাওয়া না গেলে উচ্চ আদালতের কাছে শরণাপন্ন হব।’

গ্রেপ্তার দুই মিয়ানমার নাগরিক বর্তমানে কক্সবাজার জেলা কারাগারে রয়েছেন বলে জানান আইনজীবী জ্যোতির্ময়।