মিথ্যা সংবাদ প্রকাশে ইলিয়াস কাঞ্চনের প্রতিবাদ ও ক্ষোভ প্রকাশ

বিনোদন প্রতিবেদক, সময়ের কণ্ঠস্বর- মিথ্যা তথ্যের ভিত্তিতে নিউজ করে ইলিয়াস কাঞ্চনের মত সচেতন মানুষকে অযথা বিরুপ আলোচনায় আনার অপচেষ্টা করছে কিছু মহল। যা সমাজে সচেতন কোন মানুষের কাছেই কাম্য নয়।

ইলিয়াস কাঞ্চন এই বাংলাদেশে একজন সুশীল আদর্শবাদী সচেতন মানুষ। তার সচেতনতা শুধু বাংলাদেশ নয়, গোটা বিশ্ব জানে। ইলিয়াস কাঞ্চন দেশকে নিয়ে ভাবেন, দেশের মানুষের জন্য ভাবেন এবং কাজ করে যাচ্ছেন।

আমরা জানি দীর্ঘ ২৪ বছর ধরে দেশকে সড়ক দুর্ঘটনামুক্ত হিসাবে গড়ে তুলতে তিনি নিরাপদ সড়ক চাই নামে একটি আন্দোলন করে যাচ্ছেন। সড়ক দুর্ঘটনা থেকে মানুষকে বাঁচানোর চেষ্টায় শুধু নয়, বিভিন্ন সময় আমরা তাকে দেখেছি নানান সচেতনমূলক কর্মকাণ্ডে জড়িত থাকতে।

সম্প্রতি তিনি রোহিঙ্গাদের প্রতি নির্যাতন বন্ধে একটি মানববন্ধনের ডাক দেন। তার ডাকে সাড়া দিয়ে মানববন্ধন কর্মসুচিতে সাংস্কৃতিক অঙ্গনের বিভিন্ন কর্মি, নানা শ্রেণীর পেশাজীবি, স্কুল কলেজের ছাত্র/ছাত্রী, মটর শ্রমিক, ট্রাক শ্রমিক ইউনিয়ন ও বিভিন্ন সংগঠন- এর কর্মিবৃন্দ এবং ইলিয়াস কাঞ্চনের ভক্ত ও নিসচার বিভিন্ন শাখার কর্মিবৃন্দসহ সাধারণ মানুষ অংশগ্রহন করেন।

এই মানববন্ধনে দেয়া ইলিয়াস কাঞ্চনের বক্তব্যকে কেন্দ্র করে কিছু অনলাইন নিউজ পোর্টাল বিভ্রান্তিকর সংবাদ প্রচার করে তার নামে অপপ্রচার চালিয়ে যাচ্ছেন যা দু:খজনক একটি বিষয়। ইলিয়াস কাঞ্চনকে নিয়ে মিথ্যা ও বানোয়াট তথ্য সম্বলিত বক্তব্য অনলাইন পোর্টালে নিউজ করায় তীব্র নিন্দাসহ প্রতিবাদ জানিয়ে এক বিবৃতি দিয়েছেন তিনি।

ইলিয়াস কাঞ্চনের দেয়া বিবৃতি নিচে তুলে ধরা হলো:

গত ১৪ তারিখে নিরাপদ সড়ক চাই- এর আয়োজনে ‘মিয়ানমারের আরাকান রাজ্যে রোহিঙ্গাদের উপর নির্যাতন ও গণহত্যা বন্ধ এবং জীবন বাঁচাতে বাংলাদেশে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের দ্রুত ফিরিয়ে নিতে জাতিসংঘসহ আন্তর্জাতিক মহলের হস্তক্ষেপ কামনায়’ এক মানববন্ধন করি। সেখানে আমি স্পষ্টভাবে রোহিঙ্গাদের প্রতি সমবেদনা জানাই এবং বিশ্বনেতাদের প্রতি আহবান জানাই এই বর্বর নির্যাতন বন্ধে দ্রুত কার্যকর ব্যবস্থা যেন গ্রহণ করা হয়।

সেদিন আয়োজিত সেই মানববন্ধনের নিউজ দেশের বিভিন্ন জাতীয় পত্রিকাসহ উল্লেখযোগ্য অনলাইন নিউজ পোর্টালগুলোতে আমার দেয়া বক্তব্য সুন্দরভাবে উপস্থাপন করে প্রকাশ করেন, আর এজন্য আমি সেই সব গণমাধ্যমগুলোকে ধন্যবাদ জানাই। কিন্তু আমি লক্ষ্য করছি কিছু নামধারী অনলাইন নিউজ পোর্টাল আমার সেদিনের দেয়া বক্তব্যকে বিকৃত করে তারা তাদের পোর্টালে প্রচার করছে যা আমার জন্য বিব্রতকর। যে বক্তব্য আমি প্রদান করিনি সে বক্তব্য তারা কোথায় পেল সে প্রশ্ন আমার।

এভাবে অপপ্রচার চালিয়ে তারা কি ফায়দা লুটছে তা আমার বোধগম্য নয়। আমি নিজে একজন মুক্তিযোদ্ধা। মুক্তিযুদ্ধ আমাদের অহংকার, আমি একজন মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে এই মুক্তিযুদ্ধকে আমি হৃদয়ে ধারণ করি। ৭১-এ যুদ্ধ চলাকালিন সময়ে আমার দেশেরবাড়ি কিশোরগঞ্জে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনী আক্রমণ করে, সে সময় আমার দু’বোন তাদের ছোঁড়া শেলের আঘাতে পঙ্গুত্ববরণ করেন। আমি মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সন্তান।

মুক্তিযুদ্ধ এবং মুক্তিযোদ্ধাদের নিয়ে আমি এমন বক্তব্য কখনোই দিতে পারিনা যা মুক্তিযুদ্ধ এবং মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতি অসম্মান করে। সড়কে অকালে যেন কেউ প্রাণ না হারায় এজন্য আমি দীর্ঘদিন ধরে কাজ করে যাচ্ছি। আমাকে লক্ষ্যচ্যুত এবং আপনাদের বিভ্রান্ত করার জন্য সম্প্রতি নির্বাচন নিয়ে যারা আমার নামে অপপ্রচার চালিয়েছিল আমি মনে করি এটাও তাদের একটি ষড়যন্ত্র। আমি পরিস্কার ভাষায় আপনাদের উদ্দেশ্যে বলছি এমন কোন বক্তব্য আমি প্রদান করিনি যা তারা প্রচার করে সমাজে বিভ্রান্তিকর পরিস্থিতির সৃষ্টি করছে। আমি আহবান জানাবো কোন অপপ্রচারে আপনারা বিভ্রান্ত হবেন না।

আজ আমার দেয়া এই বিবৃতির মাধ্যমে সকল অপপ্রচারের অবসান ঘটবে বলে আশা রাখি এবং প্রকৃত বিষয় সম্পর্কে আপনারা অবগত হলেন বলে আমি মনে করছি। আপনারা আমার অফিস- এর ঠিকানা জানেন, আমি এর আগেও বলেছি আমার বক্তব্য নিয়ে কোন নিউজ প্রকাশ করলে প্রয়োজনে আমার অফিসে আমার সাথে যোগাযোগ করে প্রয়োজনে আমার কথা শুনে নিউজ করবেন আশা করি।

এনএটি/আরআই