পরীক্ষা দিতে গিয়ে নিখোঁজ হওয়া মুক্তার লাশ মিললো ধানক্ষেতে! সন্দেহের তীর ফুফাতো ভাইয়ের দিকে

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি –
ঠাকুরগাঁওয়ের রানীশংকৈল উপজেলায় মুক্তা রানী (২১) নামে এক কলেজছাত্রীর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। রবিবার (১৭ সেপ্টেম্বর) দুপুরে বাড়ির পাশের ধান ক্ষেতে এলাকাবাসী লাশ দেখে রানীশংকৈল থানায় খবর দিলে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে।নিহত মুক্তা রানী ঠাকুরগাঁওয়ের রানীশংকৈল উপজেলার রাতোর ইউনিয়নের ভেলাতোর গ্রামের তোফাজুল হকের মেয়ে।

পরিবারের দাবি তাদের মেয়েকে হত্যা করা হয়েছে।

রানীশংকৈল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকতা (ওসি) আব্দুল মান্নান এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

মুক্তার পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, গত শনিবার সকালে মুক্তা রানী পরীক্ষা দেওয়ার উদ্দেশে নিজ বাড়ি থেকে বের হয়। পরে আর বাসায় ফেরেনি। পরিবারের লোকজন সন্ধান করেও তার খোঁজ পায়নি। সকালে এলাকাবাসী মুক্তার লাশ ধান ক্ষেতে পড়ে থাকতে দেখে তার বাবাকে খবর দেয় এবং পুলিশকে জানায়।

এ ঘটনায় মৃত মুক্তা রানীর বাবা তোফাজ্জল হক অভিযোগ করে বলেন, তার মেয়ে মুক্তাকে তার বোনের দুই ছেলে সোহাগ ও সবুজ এবং রাজবাড়ি বিলপাড় গ্রামের মিলন তাকে উত্ত্যক্ত করতো। কাজেই তাদের ৩ জনের মধ্যে যে কেউ হত্যা করতে পারে।

রানীশংকৈল থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকতা আব্দুল মান্নান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, মুক্তা রানী নামের এক কলেজ ছাত্রীর লাশ তার বাড়ির পাশের ধান ক্ষেত থেকে উদ্ধার করা হয়েছে। এ ঘটনায় মেয়ের বাবা তাদের মেয়ের মৃত্যুর জন্য কয়েকজনকে সন্দেহ করছে। তিনি লিখিত অভিযোগ করলে মামলা নেওয়া হবে।
ঠাকুরগাঁও পুলিশ সুপার ফারহাত আহম্মেদ ঘটনা স্থল পরিদর্শন করেছেন ।