৩ লক্ষ তালের চারা রোপণের অনন্য দৃষ্টান্ত সৃষ্টি করলেন সেই মনদীপ ঘরাই

অভয়নগর প্রতিনিধি: দেশের প্রথম মাদক ও জঙ্গীবাদ বিরোধী ক্রিকেট লীগ আয়োজন, ভবদহের জলাবদ্ধতা নিরসনে নিজে খালে নেমে স্বেচ্ছাশ্রমে কঁচুরিপানা অপসারণের পর নতুন দৃষ্টান্ত সৃষ্টি করলেন যশোরের অভয়নগর উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) মনদীপ ঘরাই।

এবার বজ্রপাত নিরোধে তালগাছ রোপণে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অভিপ্রায়ের ধারাবাহিকতায় ফেসবুক স্ট্যাটাসের মাধ্যমে আহবান করে অভয়নগর উপজেলায় একদিনে একযোগে রোপণ করা হয়েছে ৩ লক্ষ তালের বীজ। সেই সাথে রোপণের জন্য বিতরণ করা হয়েছে আরও এক লক্ষ তালের বীজ। এ প্রকল্প জলবায়ু পরিবর্তনে এসডিজির লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে নতুন মাত্রা যোগ করবে বলেও ধারণা আয়োজকদের।

এ বছর দেশে বজ্রপাতে মৃত্যু হয়েছে সবচেয়ে বেশি। সে চিন্তা করেই মাননীয় প্রধানমন্ত্রী সারাদেশে তালের চারা রোপণের নির্দেশনা দেন। যশোরের অভয়নগর উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) মনদীপ ঘরাই এ উদ্দেশ্যেই আড়াই লক্ষ তালের চারা রোপণের স্বপ্ন নিয়ে গত ৭ সেপ্টেম্বর ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দেন।

এ স্ট্যাটাস দেখেই তালগাছ সংগ্রহে এগিয়ে আসে উপজেলার সব শ্রেণী পেশার মানুষ। চলতে থাকে তালের বীজ সংগ্রহের মহোৎসব।
প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের এসজিডি বিষয়ক মুখ্য সমন্বয়ক আবুল কালাম আজাদ ওই স্ট্যাটাসেই মন্তব্য করেন স্কুলগুলোকে সম্পৃক্ত করতে। এরপর স্কুলগুলোতে সংযোগ শুরু করেন মনদীপ। ফলাফল? ৭ দিনে শুধু প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিশুরাই সংগ্রহ করেছে ১ লক্ষ তিন হাজার তালের বীজ। মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সংগ্রহ ৬৭ হাজারের অধিক। এ তালিকায় যোগ দিয়েছে কলেজও।

শুধু শিক্ষা প্রতিষ্ঠানই নয়, সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারী, ব্যবসায়ী, সাংবাদিক, পেশাজীবী সংগঠন, শ্রমজীবী সংগঠন এমনকি ব্যক্তি উদ্যোগেও সংগ্রহ হয়েছে তালের চারা। ছাড়িয়ে যায় আড়াই লক্ষের লক্ষ্যমাত্রা। শেষ পর্যন্ত সংগ্রহকৃত চার লক্ষ তালের চারার মধ্যে তিন লক্ষ রোপণ ও ১ লক্ষ তালের চারা রোপণের জন্য বিতরণ কর্মসূচী সম্পন্ন করা হয়।

শুধু বজ্রপাত প্রতিরোধই নয়, ভাঙ্গন প্রতিরোধে, ফল হিসেবে তাল, তালের পাখা, নৌকা, ঘর তৈরিতে ব্যবহার সহ নানাবিধ ব্যবহারকেও ভুলে যাওয়া যাচ্ছে না। সেই সাথে জলবায়ু সম্পর্কিত এসডিজির লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে এ উদ্যোগ সারাদেশে অনুকরণীয় দৃষ্টান্ত হয়ে থাকতে পারে।