অবশেষে সেই বৃদ্ধা মায়ের পাশে দাঁড়ালেন বরিশাল জেলা পুলিশ সুপার

মশিউর দিপু, বরিশাল থেকে- ৫ সন্তান প্রতিষ্ঠিত থাকা সত্বেয় ভিক্ষাবৃত্তি করে বেঁচে থাকা বরিশালের বাবুগঞ্জ উপজেলার সেই সত্তরোর্ধ বৃদ্ধা মায়ের পাশে দাঁড়ালেন বরিশাল জেলা পুলিশ সুপার মোঃ সাইফুল ইসলাম বিপিএম।

খবর পেয়ে ১৯ সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার সকাল ৯ ঘটিকার সময় বরিশাল শেরেই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মনোয়ারা বেগমকে দেখতে যান তিনি। এ সময় পুলিশ সুপার অসহায় চিকিৎসাধীন মায়ের শয্যার পাশে দাঁড়িয়ে তার আকুল আর্তনাদের কথা শুনেন।

আবেক আপ্লুত কন্ঠে অসহায় মায়ের এই পরিনতির কথা শুনে পুলিশ সুপার তার চিকিৎসার যাবতীয় ব্যয়ভার গ্রহন করার আশ্বাস দেয়ার পাশাপাশি তার চিকিৎসার জন্য নগদ দশ হাজার টাকা প্রদান করেন।

অসহায় মায়ের মাথায় হাত বুলিয়ে পুলিশ সুপার তার এই অবহেলার দরুন স্বাবলম্বী সন্তানদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করার প্রতিশ্রুতি দেন। এ সময় তার সাথে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পু্লশি সুপার ডিএসবি মোল্লা আজাদ হোসেন।

প্রসঙ্গত, অসহায় বৃদ্ধা এই মায়ের ৬ সন্তানের ৩ সন্তান পুলিশ কর্মকর্তা এক মাত্র মেয়ে সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের স্কুল শিক্ষিকা, এক ছেলে ব্যবসায়ী এবং আরেক ছেলে নিজের ব্যবহৃত ইজি বাইক ভাড়ায় চালিয়ে জীবিকা নির্বাহ করেন। এতগুলো সফল সন্তান থাকতেও ভাগ্যের নির্মম পরিহাসে আজ তাদের গর্ভধারীনি মাতাকে এখন দু-মুঠো আহারের জন্য মানুষের দ্বারে দ্বারে ঘুরতে হয় ভিক্ষার জন্য।

বিষয়টি নিয়ে সময়ের কন্ঠস্বর সহ বিভিন্ন পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশ হওয়ার পর দেশব্যাপী আলোড়ন সৃষ্টি হয়। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ওই খবর মূহুর্তেই ছড়িয়ে পড়লে সাধারন জনতাকে ওই বৃদ্ধের সন্তানদের উদ্দেশ্যে ধিক্কার দিয়ে মন্তব্য করতে দেখা গেছে।

সময়ের কণ্ঠস্বর/রবি