রোনালদোর ফেরার ম্যাচে হেরেই গেল রিয়াল

স্পোর্টস আপডেট ডেস্ক- পাঁচ ম্যাচের নিষেধাজ্ঞা শেষে রিয়ালের হয়ে মাঠে নামলেন রোনালদো। গোলের সুযোগ পেয়েছিলেন অনেক। তবে বল জালে জড়াতে ব্যর্থ হন এই তারকা। উল্টো শেষ সময়ের গোলে রিয়াল বেটিসের কাছে ১-০ গোলের হারের স্বাদ নিয়ে মাঠ ছেড়েছে জিদানের শিষ্যরা।

বুধবার রাতে রিয়ালের ঘরের মাঠ সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে হাজার হাজার সমর্থককে স্তব্ধ করে দেন আন্তনিও সানবিরা। শেষ মুহূর্তের গোলে জায়ান্টদের মাঠ থেকে পয়েন্ট ছিনিয়ে নিল বেটিস।

খেলার শুরু থেকেই আক্রমণে ধার ছিল না রিয়ালের। একেবারেই সাদামাটা ছিলেন গ্যারেথ বেল-ইসকোরা। কোচ জিনেদিন জিদানের কপালে চিন্তার ভাঁজ ফেলে বেটিসের গোছানো ফুটবল। রক্ষক শক্ত রেখে পরিকল্পনা নিয়ে আক্রমণে যান তারা। শুরুতেই এগিয়ে যেতে পারত। ম্যাচসেরা সানবিরা একজনকে কাটিয়ে যে শট নিয়েছিলেন তা গোলরক্ষককেও পরাস্ত করেছিলেন। কিন্তু জালে ঢুকার আগে দানি কারভালহোর পায়ে লেগে তা দিক বদল করে।

মিনিট সাতেক পর সুযোগ পেয়েছিলেন রোনালদো। ইসকোর কর্নার থেকে জটলার মধ্যে বল পেয়েছিলেন পর্তুগিজ তারকা। কিন্তু শট নেওয়ার জায়গা করতে পারেননি। বিরতির পর জায়গা পেয়েছিলেন গোলে শট নেওয়ার। বেলের ক্রসকে অনেক ওপর দিয়ে উড়িয়ে মারেন।

বেটিসও বেশ কয়েকটি সুযোগ নষ্ট করলে মনে হচ্ছিল পয়েন্ট ভাগাভাগিই হতে যাচ্ছে দুই দলের। কিন্তু শেষ মিনিটে গিয়ে বাজিমাত করেন স্প্যানিশ তরুণ সেনসেশন সানবিরা। আন্তোনিও বারাগানের ক্রস পেয়ে দারুণ হেডে নাভাসকে পরাস্ত করে উল্লাসে মাতেন।

১৯৯৮ সালের পর প্রথমবারের মতো রিয়াল মাদ্রিদের মাঠ থেকে জয় নিয়ে বাড়ি ফিরেছে রিয়াল বেটিস। অন্যদিকে ২০১১ সালের পর লিগে প্রথমবারের মতো ঘরের মাঠে টানা তিন ম্যাচে জয় পেতে ব্যর্থ হলো রিয়াল মাদ্রিদ। এর আগে ভ্যালেন্সিয়া ও লেভান্তের সঙ্গেও বার্নাব্যুর মাঠে ড্র করে জিদানের দল।

রিয়াল সোসিয়েদাদের বিপক্ষে রোববার ২-১ গোলে জেতার পথে পেলের সান্তোসের গড়া টানা ৭৩ ম্যাচে গোলের রেকর্ড স্পর্শ করে রিয়াল মাদ্রিদ। বুধবার নতুন রেকর্ড গড়ার লক্ষ্য নিয়েই মাঠে নেমেছিল লস ব্লাঙ্কোসরা। তবে বেটিসের জাল খুঁজে না পাওয়ায় রেকর্ড গড়া হলো না রিয়ালের।

লা লিগার পাঁচ রাউন্ড শেষে ৮ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের সাত নম্বরে নেমে গেল রিয়াল মাদ্রিদ। ৯ পয়েন্ট নিয়ে রিয়াল বেটিস ওঠে এসেছে ছয় নম্বরে। অন্যদিকে পূর্ণ ১৫ পয়েন্ট নিয়ে বার্সেলোনা শীর্ষে রয়েছে।

সময়ের কণ্ঠস্বর/রবি