বিশ্ব শান্তি প্রতিষ্ঠায় ধর্মীয় নেতাদের এগিয়ে আসার আহবান

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: সিউলে অনুষ্ঠিত একটি আন্তর্জাতিক সম্মেলনে বিভিন্ন ধর্মের মানুষ ও সমাজের মাঝে শান্তি ও সম্প্রীতি প্রতিষ্ঠায় যথাযথ ভূমিকা পালনের জন্য বিশ্বের ধর্মীয় নেতাদের প্রতি আহ্বান জানানোর মধ্য দিয়ে মঙ্গলবার এ সম্মেলন শেষ হয়েছে।

শুক্রবার প্রাপ্ত এক বার্তায় এ কথা জানা যায়।

হেভেনলি কালচার, ওয়াল্ডর্ং পিস, রেস্টোরেশন অব লাইট’র চেয়ারম্যান মান হী লী বলেন, সকল ধর্মগ্রন্থ মতে, ধর্মীয় নেতাদের ন্যায়পরায়ণ ও সত্যনিষ্ঠ হতে হয়। ধর্মগ্রন্থে সুস্পষ্টভাবে লিখিত নির্দেশনার ভিত্তিতে ধর্মীয় নেতৃবৃন্দের বক্তব্য উপস্থাপন করতে হবে। আন্তঃধর্ম সহমর্মিতার ক্ষেত্রে এর যথাযথ ব্যাখ্যা ও চর্চার প্রয়োজন রয়েছে।

ইউনেস্কোর তত্ত্বাবধানে সংগঠনটি দক্ষিণ কোরিয়ার রাজধানী সিউলে বার্ষিক এই ওয়ার্ল্ড রিলিজিয়ন্স পিস সম্মেলনের আয়োজন করে। ১৭ থেকে ১৯ সেপ্টেম্বর অনুষ্ঠিত এই সম্মেলনে বিশ্বের তিনশ’ ধর্মীয় নেতা অংশগ্রহণ করেন।

সম্মেলনের সমাপনী দিনে মান হী লী তার বক্তৃতায় বর্তমান বিশ্ব পরিস্থিতি এবং বিশ্ব শান্তি অন্বেষণায় ধর্মীয় নেতাদের ভূমিকার ওপর গুরুত্বারোপ করেন।

তিনি যোগাযোগের মাধ্যমে ধর্মীয় সহমর্মিতা ও শান্তি প্রতিষ্ঠায় ধর্মীয় নেতাদের অগ্রণী ভূমিকা পালনের আহ্বান জানান।

তিন দিনের এই সম্মেলনে শান্তি প্রতিষ্ঠায় সরকার ও সুশীল সমাজের যৌথ উদ্যোগের প্রয়োজনীয়তা নিয়ে আলোচনা হয়।

সম্মেলনে শান্তি ও যুদ্ধের অবসান শীর্ষক একটি ঘোষণাপত্র গৃহীত হয়। এতে বিশ্ব শান্তির জন্য আন্তর্জাতিক সহযোগিতার পাশাপাশি সম্মেলনে অংশগ্রহণকারীদের শান্তি প্রক্রিয়ার আইনগত ভিত্তির লক্ষ্যে এ সম্পর্কিত নীতি উদ্ভাবনের আহ্বান জানান লী।

সম্মেলনে ৫৩ দেশের নারী সংগঠনের প্রতিনিধিরা শান্তির জন্য কার্যকর আন্তর্জাতিক আইন প্রণয়নে নারী নেতৃবৃন্দের ভূমিকা নিয়ে বক্তব্য দেন। ২০১৪ সাল থেকে এই সম্মেলন অনুষ্ঠিত হচ্ছে।