হাতীবান্ধায় হঠাৎ বন্যা, ৫ শতাধিক পরিবার পানিবন্দি!

মোঃ ইউনুস আলী, লালমনিরহাট প্রতিনিধি:

ভারী বৃষ্টিপাত ও উজানের ঢলে আবারও তিস্তার নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়ে লালমনিরহাট জেলার হাতীবান্ধা উপজেলায় হঠাৎ করে তিস্তা নদীর পানি বৃদ্ধি হওয়ায় বন্যা দেখা দিয়েছে। ফলে এতে ৬ টি ইউনিয়নে প্রায় ৫ শতাধিক পরিবার পানিবন্দি হয়ে পড়েছে।

শুক্রবার সকালে তিস্তা ব্যারাজের ডালিয়া পয়েন্টে ৫২.১৮ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে পানি প্রবাহিত হচ্ছে। ব্যারাজটি নিয়ন্ত্রনে রাখতে ৪৪ টি গেট খুলে দেওয়া হয়ে। শুত্রবার সকাল থেকে তিস্তার পানি কমছে বলে পানি উন্নয়ন বোর্ড জানান।

শুক্রবার রাত থেকে তিস্তা পানি বৃদ্ধিতে হাতীবান্ধা উপজেলার বন্যাকবলিত ৬ টি ইউনিয়নের মধ্যে উল্লেখযোগ্য এলাকা হল, গড্ডিমারী ইউনিয়নের- দোয়ানী, ছয়আনী, নিজ গড্ডিমারী। সানিয়াজান ইউনিয়নের নিজ শেখ সুন্দুর, পাড়শেখ সুন্দর, বাঘের চর, জিঞ্জির পাড়া। ঠাংঝাড়া ইউনিয়ন, সিংঙ্গীমারী ইউনিয়নের ধুবনী, চর ধুবনী, উত্তর ধুবনি। সিন্দুর্না ইউনিয়নের চর সিন্দুনা, হলদিবাড়ি। ডাউয়াবাড়ির ইউনিয়নের, বিছন দই, উত্তর ডাউয়াবাড়ি এলাকায় প্রায় ৫ শতাধিক পরিবার পানিবন্দি হয়েছে।

এদিকে শুক্রবার রাতে গড্ডিমারী ইউনিয়নের তালেব মোড় বাজার এলাকায় বালির বস্তা দিয়ে বাধঁটি রক্ষা করা হয়েছে। রাতেই হাতীবান্ধা উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা (ইউএনও) সৈয়দ এনামুল কবির ও উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা ফেরদৌস আহম্মেদ এলাকা পরিদর্শন করেছেন।

উপজেলা গড্ডিমারী ইউনিয়নে দোয়ানী গ্রামের আমজার হোসেন জানান, গত বৃহস্পতিবার থেকে তিস্তার পানি হঠাৎ বৃদ্ধি পেয়ে এক দিন ধরে আমারা পানিবন্দি হয়ে পড়ে আছি।

হাতীবান্ধার উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা ফেরদৌস আহম্মেদ সময়ের কণ্ঠস্বরকে জানান, শুত্রবার রাত থেকে তিস্তার পানি বৃদ্ধি পেয়ে উপজেলা ৫ শতাধিক পরিবার পানিবন্দি হয়ে পড়েছে। বর্তমানে পানি কমতে শুরু করেছেন।