কোচিং মুক্ত এডমিশন টেস্ট ও এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের জন্য কাজ করছে ‘সিলসা’

পলাশ মল্লিক, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট: “ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়” এলেভেল  বা এইচএসসি  পাশকরা এডমিশন ক্যান্ডিডেটদের কাছে স্বপ্নের একটি  নাম।

“ঢাবিয়ান” শব্দটি যেন তাদের কাছে বহুল আকাঙ্খিত একটি উপাধি। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতি বছর আনুষ্ঠানিক ভাবে ভর্তি পরীক্ষার মাধ্যমে নতুন মেধাবীদের দেশের সেরা এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটিতে উচ্চ শিক্ষা গ্রহণের সুযোগ দিয়ে থাকে এ, বি, সি, ডি, ই এই চারটি ইউনিটের মাধ্যমে যথাক্রমে  বিজ্ঞান, মানবিক, ব্যবসায় শিক্ষা, সামাজিক বিজ্ঞান ও চারুকলা অনুষদের ভর্তি পরীক্ষার আয়োজন করে থাকে।

দেশসেরা মেধাবীরা এই পরীক্ষায় উত্তীর্ন হওয়ার মাধ্যমে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার সুযোগ পায়। ৫ টি ইউনিটে সিট সংখ্যা ৭১২৩ টি তার মধ্যে এ ইউনিটে ১৭৬৫ টি বি ইউনিটে ২৩৬৩ টি সি ইউনিটে ১২৫০ টি ডি ইউনিটে  ১৬১০ টি ই  ইউনিটে ১৩৫ টি প্রতি বছর এই ভর্তি পরীক্ষায়  এডমিশন টেস্ট ক্যান্ডিডেট দের পাশে দাঁড়ায় ঢাবির বিভিন্ন ছাত্র সংগঠন। তাদের মধ্যে সবচেয়ে জনপ্রিয় একটি সংগঠন হচ্ছে SILSWA (সিলসা), ঢাবির কিছু স্বেচ্ছাসেবক ছাত্র-ছাত্রীদের দিয়ে পরিচালিত একটি অলাভজনক সংগঠন যার স্লোগান  ছাত্রের জন্য ছাত্র। লাখ লাখ শিক্ষার্থীদের ঢাবির স্বপ্ন দেখানো একটি সংগঠন।

“Dream to Dhaka university” নামের একটি ফেইসবুক গ্রুপের মাধ্যমে তারা কাজ করে থাকে, “facebook মানেই সময় অপচয়” এমন ধারণাই বদলে দিয়েছে গ্রুপটি। কোচিং মুক্ত এডমিশন টেস্ট  ও এইচএসসি পরীক্ষার্থী দের একাডেমিক গাইডলাইন দেয়াই হচ্ছে “সিলসা”  এর উদ্দেশ্য । ঢাবি ছাড়াও সকল পাবলিক ইউনিভার্সিটি ও কলেজ লেভেলে  তাদের একই কার্য্যক্রম পরিচালিত হয় বলে জানিয়েছে সংগঠনের সাথে জড়িত বেশ কয়েকজন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র।

তারা আরো জানিয়েছেন চলতি বছর থেকে “সিলসা”  হেল্পিং ডেস্ক এর মাধ্যমে তাদের কার্যক্রম আরো বৃহদাকার করেছে। প্রথম বার ঢাবিতে এসে পরীক্ষার সিট খুঁজে পেতে যে কাউকেই বেগ পেতে হয়। তাই হেল্পিং ডেস্ক এর মাধ্যমে ক্যান্ডিডেট দের সিট লোকেশন বের করে দেয়া ও গাইডলাইন দেয়ার কার্যক্রম হাতে নিয়েছে।

১৫ এবং ২২ তারিখ সি ও বি ইউনিটের পরীক্ষায় তারা সফল ভাবে হেল্পিং ডেস্কের কাজ করেছে। সামনের পরীক্ষা গুলোতেও তারা কাজ করে যাবে বলে জানিয়েছেন।