কালকিনিতে ৬ মাসের অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধুকে মারধরে গর্ভপাত, মামলা করায় হুমকি

এইচ এম মিলন, কালকিনি প্রতিনিধি: তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে মাদারীপুরের কালকিনিতে প্রতিপক্ষের মারধরের ঘটনায় তামান্না বেগম নামের এক ৬ মাসের অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধুর গর্ভপাত হয়েছে। এ বিষয় ওই গৃহবধু কোর্টে একটি মামলা দায়ের করেন।

এতে করে মামলা তুলে নেয়ার জন্য একের পর এক ওই গৃহবধুকে প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে আসছে আসামীরা। এ হুমকির ভয়ে ওই গৃহবধু তার বাবার বাড়িতে আশ্রয় নিয়েছে বলে আজ রবিবার একটি অভিযোগ সুত্রে জানা গেছে। এদিকে ভুক্তভোগীর পরিবার আসামীদের দৃষ্টান্তমুলক বিচারের দাবিতে উপজেলার গুরুত্বপূর্ণ বিভিন্নস্থানে পোষ্টারিং করেছেন।

এলাকা, মামলা ও ভুক্তভোগীর পরিবার সুত্রে জানা গেছে, উপজেলার সাহেবরামপুর এলাকার চরসাহেবরাপুর গ্রামের আবুল বাশারের সাথে একই গ্রামের হানিফ সরদারের গত ৩০ আগষ্ট তুচ্ছ ঘটনা নিয়ে বাকবিতন্ডা হয়। এক পর্যায় হানিফ সরদারের নেতৃত্বে বাবু সরদার ও বাচ্চু সরদারসহ ৬/৭ জন মিলে আবুল বাশারকে মারধর করে। এ সময় বাশারের স্ত্রী ৬ মাসের অন্তঃসত্ত্বা তামান্না বেগম তাদের মারধরের ঘটনা বাঁধা দিলে তাকেও বেদম মারধর করা হয়। এতে করে সে অসুস্থ হয়ে পরলে তাকে মাদারীপুর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গর্ভপাত ঘটে।

এতে করে গৃহবধু বাদী হয়ে মাদারীপুর কোর্টে ৭ জনকে আসামী করে মামলা দায়ের করেন। এ মামলা করায় আসামী পক্ষরা ক্ষিপ্ত হয়ে গৃহবধু তামান্নাকে প্রাননাশের হুমকি প্রদর্শন করে আসছে। পরে নিরুপায় হয়ে ওই গৃহবধু তার বাবার বাড়ি উপজেলার কয়ারিয়া এলাকার ময়দানেরহাট গ্রামে আশ্রয় নিয়েছেন।

গৃহবধুর শাশুরী জাহানার বেগম বলেন, আমার পুত্রবধুকে হানিফ তার লোকজন নিয়ে বেদম মারধর করায় গর্ভপাত ঘটে। আমরা এ ঘটনার বিচার চাই। আসামীদের হুমকিতে বর্তমানে আমার পুত্রবধু তার বাবার বাড়িতে আশ্রয় নিয়েছে।

সরেজমিনে গিয়ে এ বিষয় জানতে চাইলে অভিযুক্ত মামলার আসামী হানিফ সরদারের সাথে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করে তাকে পাওয়া যায়নি।

এ ব্যাপারে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা কালকিনি থানার এস আই বাবুল বসু বলেন, আসামীদের গ্রেপ্তারের জোর প্রচেষ্টা চলেছে। তবে হুমকির বিষয় জানিনা।