প্রধানমন্ত্রীকে হত্যাচেষ্টার খবর উদ্দেশ্যপ্রণোদিত: প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট- প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ২৪ আগস্ট হত্যার ষড়যন্ত্র করা হয়েছিল বলে বিদেশি গণমাধ্যমে যে সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে, তা ভিত্তিহীন, বিভ্রান্তিমূলক ও উদ্দেশ্যপ্রণোদিত বলে জানিয়েছে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়।

রবিবার বিকালে প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব এহসানুল করিমের পক্ষে উপ-প্রেস সচিব আশরাফুল আলম খোকন স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ কথা বলা হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, গত ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৭ তারিখে একটি বিদেশী টিভি চ্যানেল ও একটি আন্তর্জাতিক অনলাইন পত্রিকার সূত্র ব্যবহার করে বাংলাদেশের কয়েকটি সংবাদ মাধ্যম গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপর বিগত ২৪ আগস্ট ২০১৭ তারিখে প্রাণনাশী হামলার ব্যর্থ প্রচেষ্টার খবর প্রকাশ করে।

‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর উপর তথাকথিত ব্যর্থ হামলার সাথে একটি বিশেষ বাহিনীর কতিপয় সদস্যকে সংশ্লিষ্ট করে বাংলাদেশের কয়েকটি টিভি চ্যানেলে খবর প্রচারসহ আলোচনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, ‘সকলের অবগতির জন্য জানানো যাচ্ছে যে, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর উপর ২৪ আগস্ট ২০১৭ তারিখে হামলার খবরটি সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন, বিভ্রান্তিমূলক এবং উদ্দেশ্যপ্রণোদিত। দেশের নিরাপত্তার সার্বিক স্বার্থ পরিপন্থী এরূপ বিভ্রান্তিমূলক সংবাদ প্রচার করা যেকোন দায়িত্বশীল ব্যক্তি ও সচেতন গণমাধ্যম এর পক্ষে মোটেও কাম্য নয়।’

‘এরূপ ভিত্তিহীন এবং বিভ্রান্তিমূলক সংবাদ প্রকাশের পূর্বে সংশ্লিষ্ট সকলকে সতর্কতা অবলম্বন এবং বিচার বিবেচনা প্রসূত মিডিয়া কার্যক্রম পরিচালনার জন্য বিশেষভাবে অনুরোধ’ করা হয়।

এর আগে প্রধানমন্ত্রীর ওপর হামলা সংক্রান্ত ভারতীয় সংবাদমাধ্যম নিউজ ১৮ এ প্রকাশিত সংবাদটি সত্যতা নাকচ করে দিয়েছেন শিল্পমন্ত্রীও।

রবিবার দুপুরে সচিবালয়ে বৈঠক শেষে আইনশৃঙ্খলা সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির আহবায়ক ও শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু বলেছেন, প্রধানমন্ত্রীকে হত্যাচেষ্টার কোনো তথ্য নেই সরকারের কাছে। এই সংক্রান্ত খবর ভূয়া। তাই এ বিষয়ে কোনও আলোচনাও হয়নি আইনশৃঙ্খলা সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠকে।

সময়ের কণ্ঠস্বর/রবি