স্কুলছাত্রীকে আত্মহত্যায় প্ররোচনাকারীর ফাঁসির দাবিতে মানববন্ধন!

ফরহাদ আকন্দ, গাইবান্ধা প্রতিনিধিঃ গাইবান্ধার সাদুল্যাপুর উপজেলার ইদিলপুর ইউনিয়নের মাদারহাট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে নবম শেণির ছাত্রী আয়শা ছিদ্দিকা মিষ্টিকে আত্মহত্যায় প্ররোচনাকারী, উত্যাক্তকারী, বখাটে সোহেলসহ তার সহযোগীদের দ্রুত গ্রেফতার ও শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

আজ সোমবার (২৫ সেপ্টেম্বর) সাদুল্যাপুর উপজেলার ইদিলপুর ইউনিয়নের পলাশবাড়ী-সাদুল্যাপুর সড়কে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক, শিক্ষার্থী, অভিভাবক ও সর্বস্তরের জনগণসহ বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসীর উদ্যোগে এ মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়।

মানববন্ধনে মিষ্টির বাবা মোস্তা বলেন, অপরাধীরা প্রতিনিয়ত আমার মেয়েকে বিদ্যালয়ে যাওয়া আসার পথে বিভিন্ন কু-প্রস্তাব দিতো, এসব কু-প্রস্তাবে আমার মেয়ে রাজি না হওয়ায় মিষ্টিকে বিভিন্ন ভাবে উত্যক্ত, গালিগালাজ ও ধর্ষণের ভয়-ভীতি দেখাতো। ঘটনার দিন বাড়ী ফেরার পথে কয়েকজন বখাটে মিলে আমার মেয়ে ও তার বান্ধবীদের থামিয়ে সোহেল আমার মেয়েকে থাপ্পর মারে আমার মেয়ে লজ্জায় ও কষ্টে বাড়ী এসে সন্ধ্যার পর পরিবারের অজান্তে বিষপান করে আত্মহত্যা করে। আমার মতো যেন আর কোন বাবা কে সন্তান হারাতে না হয়। আর যেন কাউকে পথে দাঁড়াতে না হয় নিজের সন্তান হত্যার বিচারের দাবীতে। মুল অপরাধী এখনও পুলিশের হাতে ধরা না পরায় হতাশা প্রকাশ করেন মিষ্টির বাবা। তিনি দ্রুত অপরাধীদের গ্রেফতার ও শাস্তির দাবী জানান।

মানববন্ধনে মিষ্টির বান্ধবীরা জানায়, বিদ্যালয় হতে বাড়ী ফেরার পথে বখাটে সোহেল মিষ্টিকে প্রতিনিয়ত উত্যাক্ত করতো, কু-প্রস্তাব দিতো এছাড়াও গালিগালাজসহ ধর্ষনের ভয় দেখাতো। ঘটনার দিন আমরা ও মিষ্টিসহ বাড়ী ফেরার পথে সোহেল পথরোধ করে আমাদেরকে আটকিয়ে মিষ্টির গালে থাপ্পর দেয়। পরে মিষ্টি বাড়ী ফিরে সন্ধ্যার পর বিষপানে আত্মহত্যা করে। আমরা আমাদের বান্ধবী মিষ্টি আক্তারের হত্যাকারী জানোয়ারদের দ্রুত গ্রেফতার ও ফাঁসী দাবী জানাচ্ছি।

মানববন্ধনে বক্তারা আরও বলেন, ডিজিটাল যুগে অপরাধিরা পালিয়ে থাকবে আর আইন শৃংখলা বাহিনী তাদের গ্রেফতার করতে পারছে না এ যুক্তি মেনে নেওয়া যায় না। আগামী ৭২ ঘন্টার মধ্যে অপরাধীদের গ্রেফতার করতে না পারলে সাদুল্যাপুর উপজেলা পরিষদ ঘেড়াও করার ঘোষণা দেয় বক্তরা।

সময়ের কণ্ঠস্বর/রবি