গাজীপুরে শারদীয় দুর্গোৎসব উপলক্ষে পাঁচ স্তরের নিরাপত্তা

পলাশ মল্লিক, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট: গাজীপুর জেলার দুর্গাপূজাকে ঘিরে ব্যাপক প্রস্তুতি চলছে। সাঁজ-সজ্জার কাজে ব্যস্ত সময় পার করছে পূজা সংশ্লিষ্টরা। হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের এ বড় উৎসবকে ঘিরে গাজীপুরে নেয়া হয়েছে পাঁচ স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা।  ইতোমধ্যে বিভিন্ন স্থানে চেকপোস্টের মাধ্যমে তল্লাশি কার্যক্রম চলছে।

এ বছর গাজীপুর জেলায় ৫৫৮ টি মণ্ডপে শারদীয় দুর্গোৎসব পালিত হবে। আগামীকাল ২৭ সেপ্টেম্বর শুরু হবে পূজার আনুষ্ঠানিক কার্যক্রম। আর ৩০ সেপ্টেম্বর বিসর্জন। এদিকে শারদীয় উৎসব পালনে জেলার সনাতন ধর্মাবলম্বীদের মাঝে বইছে উৎসবের আমেজ। দুর্গা দেবীর আগমনে প্রতিবারের মত এ বছরও প্রতিটি মন্দিরে নানা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। এ বছর দুর্গার আগমন নৌকায় আর গমন ঘোটকে (ঘোড়ায়)।

গাজীপুর জেলা পূজা উদযাপন কমিটি সূত্রে জানা গেছে, জেলাতে মোট ৫৫৮টি পূজা মণ্ডপে দুর্গোৎসব পালিত হবে। এর মধ্য গাজীপুর মহানগরে ভিতরে ৮৮টি মন্দিরে পূজা অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

গাজীপুর জেলা পুলিশের বিশেষ শাখার (এসবি) পরিদর্শক মমিনুল ইসলাম সময়ের কন্ঠস্বরকে জানান, শারদীয় দূর্গাপূজা উপলক্ষে জেলার নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোড়দার করা হয়েছে। পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে তিন স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহন করা হয়েছে।

গাজীপুর জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সাখাওয়াত হোসেন সময়ের কন্ঠস্বরকে জানিয়েছেন, পূজাতে অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা এড়াতে তিনস্তর বিশিষ্ট নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহন করা হয়েছে। মন্দিরে পুলিশ ও আনসার সদস্যদের কাজের পাশাপাশি টহল টিম ছাড়াও সাদা পোশাকে পৃথক টিম সার্বক্ষণিক নজরদারি করবে। এছাড়া এ বছর পুলিশের হোন্ডা মোবাইল টিম মাঠে থাকছে।

অন্যদিকে র‍্যাবের পক্ষ থেকেও পোশাকে এবং সাদা পোশাকে জেলার মন্দির গুলো নিরাপত্তায় কাজ করবে র‍্যাব। র‍্যাবের টহলগাড়ী মন্দিরে মন্দিরে নজরদারী চালিয়ে যাবে।