ঘুষের মামলায় শিক্ষক শ্যামল কান্তির বিচার শুরু

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি- নারায়ণগঞ্জে বন্দরের এক শিক্ষিকাকে এমপিওভুক্ত করে দেওয়ার আশ্বাস দিয়ে ঘুষ নেওয়ার অভিযোগে করা মামলায় শিক্ষক শ্যামল কান্তি ভক্তের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করা হয়েছে। তিনি নারায়ণগঞ্জের পিয়ার সাত্তার লতিফ উচ্চবিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক।

বুধবার দুপুরে নারায়ণগঞ্জ জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম (তৃতীয়) আক্তারুজ্জামান ভূঁইয়া শ্যামল কান্তির উপস্থিতিতে শুনানি শেষে অভিযোগ গঠন করেন। আগামী ১২ ডিসেম্বর মামলার পরবর্তী তারিখ ধার্য করা হয়েছে।

এর মধ্য দিয়ে ঘুষ গ্রহণের অভিযোগের মামলায় শিক্ষক শ্যামল কান্তির বিচার শুরু হলো, যাকে ধর্ম অবমাননার অভিযোগে লাঞ্ছনার শিকার হতে হয়েছিল।

শ্যামল কান্তি ভক্ত বুধবার দুপুরে নারায়ণগঞ্জের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আক্তারুজ্জামানের আদালতে ঘুষের মামলা থেকে অব্যাহতি চেয়ে আবেদন করলে আদালত তা নামঞ্জুর করেন। পরে আদালত এই মামলায় তার বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের আদেশ দেন। এ মামলায় শ্যামল কান্তি স্থায়ী জামিনে রয়েছেন।

শ্যামল কান্তি ভক্তের আইনজীবী অ্যাডভোকেট সাখাওয়াত হোসেন খান বলেন, ‘মামলা থেকে অব্যাহতি চেয়ে আবেদন করলে আদালত তা নামঞ্জুর করেন।’

তিনি বলেন, ‘আমরা সুবিচারের আশায় আছি। শ্যামল কান্তি ভক্ত একজন শিক্ষক। পূর্বপরিকল্পিতভাবে তাকে স্কুল থেকে তাড়ানোর জন্যই এ মিথ্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে। আশা করছি, শ্যামল কান্তি সুষ্ঠু বিচার পাবেন।’ এ মামলায় বাদীপক্ষের আইনজীবী হিসেবে আছেন অ্যাডভোকেট হাসান ফেরদৌস জুয়েল ও অ্যাডভোকেট মহসিন মিয়া।

প্রসঙ্গত, ধর্ম অবমাননার অভিযোগে গত বছরের ১৩ মে শিক্ষক শ্যামল কান্তি ভক্তকে কান ধরে উঠবসের ঘটনার দুই মাসের মাথায় তার বিরুদ্ধে ঘুষ গ্রহণের অভিযোগে মামলা করা হয়। এমপিওভুক্ত করে দেওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে শ্যামল কান্তি স্কুলের ইংরেজি বিষয়ের শিক্ষক মোর্শেদা বেগমের কাছ থেকে ১ লাখ ৩৫ হাজার টাকা ঘুষ নেন— এমন অভিযোগে গত বছরের ১৪ জুলাই মামলাটি করা হয়।

দীর্ঘ তদন্তের পর গত ১৭ এপ্রিল পুলিশ চারজনকে সাক্ষী দেখিয়ে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করে।

রবি