অবশেষে গ্রেফতার ধর্ষক গুরুর পালিত কন্যা হানিপ্রীত

আন্তর্জাতিক ডেস্ক- দুই শিষ্যাকে ধর্ষণের মামলায় ২০ বছরের কারাদণ্ডপ্রাপ্ত ভারতের বিতর্কিত ধর্মগুরু রাম রহিম সিংয়ের পালিত কন্যা হানিপ্রীত সিংকে গ্রেফতার করা হয়েছে। মঙ্গলবার ভারতের চণ্ডীগড় এলাকার কাছে একটি মহাসড়ক থেকে হরিয়ানা পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে বলে এনডিটিভি এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে।

পঞ্চকুলার পুলিশ কমিশনার মানবীর সিং ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে সাংবাদিক সন্মেলনে জানান, বুধবার তাকে আদালতে তোলা হবে৷

রাষ্ট্র্রদোহ এবং রাম রহিমকে কারাগারে সহায়তার চেষ্টার অভিযোগে অভিযুক্ত ৩৬ বছর বয়সী হানিপ্রীতকে বেশ কিছুদিন ধরেই খুঁজছিল পুলিশ। এর আগে আইনজীবীর মাধ্যমে জামিন চেয়ে আবেদন করলে আদালত সে বিষয়ে শুনানি স্থগিত রেখে গুরুমিতের এই কন্যাকে আত্মসমর্পণের নির্দেশ দিয়েছিল।

গত ২৫ অগস্ট গুরমিত রাম রহিমের সাজা ঘোষণার পরই হরিয়ানা, পঞ্জাব এবং দিল্লির বিভিন্ন অংশে রাম রহিমের সমর্থকরা তাণ্ডব চালায়। তাতে বহু মানুষ নিহত হন। সরকারি সম্পত্তির ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়। ডেরার মোট ৪৩ জনের বিরুদ্ধে হিংসা ছড়ানোর অভিযোগে মামলা দায়ের করে পুলিশ। তার পর থেকেই পালিয়ে বেড়াচ্ছিলেন হানিপ্রীত। মাঝে পুলিশের বিরুদ্ধেও অভিযোগ ওঠে, তারা হানিপ্রীতকে পালাতে সাহায্য করছে। জারি হয় লুক-আউট নোটিশও।

তবে একটি বেসরকারি চ্যানেলে সাক্ষাৎকাহর দিতে গিয়ে হানি বলেন, ‘আমি ভারত ছেড়ে কোথাও যাইনি। নেপালে যাওয়ার খবর সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন।’ দাবি করেন, তিনি সম্পূর্ণ নির্দোষ।

তার কথায়, ‘একদিন সত্যি প্রকাশিত হবেই। আমি মর্মাহত, আমাদের সঙ্গে যা ঘটছে তা কাম্য নয়। কী ভাবে আমাদের সঙ্গে এমন ব্যবহার হচ্ছে জানি না। আমরা সত্যিকারের দেশভক্ত। ভারতকে খুব ভালোবাসি।’

এদিন সকাল থেকেই হানিপ্রীতের আত্মসমর্পণের খবর চাউর হতে শুরু করে৷ গ্রেপ্তার হওয়ার আগে হানিপ্রীতের একান্ত সাক্ষাৎকারের ভিডিও ছড়িয়ে পড়ে মিডিয়ায়৷ প্রশ্ন ওঠে, পুলিশ হানিপ্রীতের খোঁজ পেল না অথচ সংবাদমাধ্যম তার কাছে পৌছে যায় কী করে?

হানিপ্রীতের অভিযোগ, ডেরায় হাজার হাজার মহিলা রয়েছেন। সেখান থেকে মাত্র দু’জনের অভিযোগকেই গুরুত্ব দেয়া হলো কেন? এবং তা-ও চিঠির বয়ানের ভিত্তিতে! কেন ওই মহিলারা সামনে এলেন না?

সেই ভিডিওয় বাবা রহিমের সঙ্গে তার সম্পর্ক নিয়েও মুখ খুলেছেন তিনি৷ সাফ জানিয়েছেন, বাবার সঙ্গে তার পবিত্র সম্পর্ক ছিল৷ পাপা কি পরি দাবি করেন তিনি ও বাবা নির্দোষ৷ সত্যিতা সকলের সামনে প্রকাশ আসবেই৷ এদিকে ভিডিওটি প্রকাশ্যে আসার কয়েক ঘন্টার মধ্যে গ্রেপ্তার হন রাম রহিমের সঙ্গিনী৷

সময়ের কণ্ঠস্বর/রবি