জোড়পূর্বক তুলে নিয়ে স্কুলছাত্রীকে বিবস্ত্র করে ভিডিও ধারণের পর দু’দফা সংঘবদ্ধ ধর্ষণ

সময়ের কণ্ঠস্বর: গাজীপুরের কালীগঞ্জ উপজেলায় পঞ্চম শ্রেণির এক ছাত্রীকে জোড়পূর্বক তুলে নিয়ে বিবস্ত্র দৃশ্যের ভিডিও মোবাইল ফোনে ধারণ করেছে বখাটেরা। পরে ওই ভিডিও ইন্টারনেটে ছেড়ে দেয়ার ভয় দেখিয়ে ওই ছাত্রীকে দু’দফা সংঘবদ্ধ ধর্ষণ করার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

এছাড়া ওই ভিডিও ইন্টারনেটে ছেড়ে দেয়ারও অভিযোগ উঠেছে। উপজেলার বক্তারপুর ইউনিয়নের ফুলদী গ্রামের দাসপাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় গত ৬ অক্টোবর শুক্রবার ধর্ষণের শিকার ছাত্রীর মা বাদী হয়ে কালীগঞ্জ থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

অভিযোগের প্রেক্ষিতে ওইদিন রাতে একটি মামলা (নং-৪) দায়ের করা হয়। এতে স্থানীয় রবি দাসের ছেলে সাগর রবি দাস, সাইজুদ্দিনের ছেলে রাজু, কাসেমের ছেলে শ্যামল, মন্টু রবি দাসের ছেলে সঞ্জীবন রবি দাস এ ঘটনা ঘটায় বলে উল্লেখ করা হয়েছে।

অভিযোগে বলা হয়, গত ১৬ আগস্ট স্কুল ছুটির পর বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে বাড়ি ফিরছিল ওই স্কুল ছাত্রী। ঘোষ পাড়া এলাকায় পৌঁছলে ফুলদী গ্রামের সাগর রবি দাস, রাজু, শ্যামল ও সঞ্জীবন রবি দাস মেয়েটির মুখ চেপে ধরে জঙ্গলে নিয়ে বিবস্ত্র করে মোবাইল ফোনে তা ভিডিও ধারণ করা হয়।

পরে সেই ভিডিও ইন্টারনেটে ছেড়ে দেয়ার ভয় দেখিয়ে ওই ছাত্রীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ করেন তারা। অভিযোগে আরও বলা হয়, এ ঘটনা কারো কাছে প্রকাশ করলে ধারণ করা ভিডিও ইন্টারনেটে প্রকাশ করা ও মেয়েটিকে প্রাণে মেরে ফেলার ভয় দেখায় তারা। এ কারণে সে সময় বিষয়টি প্রকাশ করেনি।

কিন্তু চলতি মাসের ৩ সেপ্টেম্বর পুনঃরায় ওই ছাত্রীকে তুলে নিয়ে সাগর রবিদাস ও তার সহযোগীরা সংঘবদ্ধ ধর্ষণ করে। তাছাড়া এর আগে ধারণ করা ভিডিও ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেয় বলেও অভিযোগে বলা হয়।

কালীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. আলম চাঁদ জানান, এ ব্যাপারে ভীকটিমের মা থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন। সে প্রেক্ষিতে শুক্রবার রাতে একটি মামলা দায়ের হয়েছে। আর সেই মামলার অভিযুক্তদের আটকের ব্যাপারে আমাদের টিম মাঠে কাজ করছে।