প্রধান বিচারপতি সিনহার ছুটির মেয়াদ বাড়ল

সময়ের কণ্ঠস্বর: প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার ছুটির মেয়াদ বেড়েছে আরো ১০দিন। এক মাসের পর এখন ওই ছুটির মেয়াদ আরো দশ দিন বাড়িয়ে ১০ নভেম্বর পর্যন্ত করা হয়েছে। ছুটির মেয়াদ বৃদ্ধি করায় এখন ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি মোহাম্মদ আবদুল ওয়াহ্হাব মিঞাকে প্রধান বিচারপতির কার্যভার পালনের দায়িত্ব ওই সময় পর্যন্ত প্রদান করে প্রজ্ঞাপন জারির বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন রয়েছে বলে নিশ্চিত করেছে আইন মন্ত্রণালয়ের একটি সূত্র।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, বিচারপতি সিনহার বিদেশ যাওয়ার বিষয়টি রাষ্ট্রপতিকে অবহিত করে মঙ্গলবার এ সংক্রান্ত একটি চিঠি সুপ্রিম কোর্ট প্রশাসন থেকে আইন মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়েছে। চিঠিতে বলা হয়েছে, আগামী ১৩ অক্টোবর অথবা এর নিকটবর্তী তারিখে ঢাকা ত্যাগ করবেন প্রধান বিচারপতি। ১০ নভেম্বর অথবা এর নিকটবর্তী তারিখে বিদেশ থেকে তিনি দেশে ফিরবেন।

এর আগে গত ৩ অক্টোবর থেকে ১ নভেম্বর পর্যন্ত এক মাসের ছুটিতে যান প্রধান বিচারপতি সিনহা। সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতি দাবি করেছে জোর করে প্রধান বিচারপতিকে ছুটিতে পাঠানো হয়েছে। তবে তা অস্বীকার করেছে সরকার। এনিয়ে রাজনৈতিক মহলে তুমুল বিতর্ক চললেও বিচারপতি সিনহা কোনো কথা বলেননি।

জানা যাচ্ছে, এই ছুটিতে থাকাবস্থায় অস্ট্রেলিয়ার ভিসার জন্য আবেদন করেন তিনি ও তার স্ত্রী সুষমা সিনহা। অষ্ট্রেলিয়া দূতাবাস তাদেরকে তিন বছরের ভিসা দেয়। দেশটিতে তাদের বড় কন্যা সূচনা সিনহা বসবাস করছেন। বিদেশে গিয়ে প্রধান বিচারপতি সেখানে উঠবেন বলে জানা গেছে।

এদিকে এক মাসের ছুটিতে থাকাবস্থায় প্রধান বিচারপতি তার ছুটির মেয়াদ দশ দিন বাড়িয়েছেন। ছুটির মেয়াদ বৃদ্ধির বিষয়টিও মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে চিঠি দিয়ে রাষ্ট্রপতিকে অবহিত করা হয়েছে। সেই হিসাবে তিনি এখন ১০ নভেম্বর পর্যন্ত ছুটিতে থাকবেন। আগে তার ছুটির মেয়াদ ছিল পহেলা নভেম্বর পর্যন্ত।

প্রধান বিচারপতি যখন বিদেশে যান তখন একটি সরকারি আদেশ (জিও) জারি করতে হয়। ওই সরকারি আদেশ জারি করতে সুপ্রিম কোর্ট থেকে আইন মন্ত্রণালয়ে চিঠি পাঠানো হয়ে থাকে। মঙ্গলবার মন্ত্রণালয়ে পাঠানো ওই চিঠিটি এখন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদের কাছে যাবে। এরপরই বিদেশ যাওয়ার ব্যাপারে সরকারি আদেশ জারি হবে বলে মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়।

প্রসঙ্গত, প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহার বয়স বিচারে অবসরে যাওয়ার দিন ধার্য রয়েছে আগামী বছরের ৩১ জানুয়ারি। তিনি দায়িত্ব গ্রহণ করেছিলেন ২০১৫ সালের ১৭ জানুয়ারি। মেয়াদ শেষ হওয়ার ৩ মাস আগেই প্রায় দেড় মাসের ছুটিতে গেলেন তিনি। এর আগে গত ৮ থেকে ২৩ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত কানাডা ও জাপান সফরে যাওয়ার জন্য ১৬ দিনের ছুটি নেন প্রধান বিচারপতি।