নির্বাচনের আগে প্রধানমন্ত্রীকে ক্ষমতা ছাড়ার আহবান ফখরুলের

পলাশ মল্লিক, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট-  বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, নির্বাচনের আগে প্রধানমন্ত্রী আপনি ক্ষমতা ছেড়ে দেন, ক্ষমতা ছেড়ে দিয়ে একটা নিরপেক্ষ লোকের হাতে নির্বাচন পরিচালনার দায়িত্ব দেন।

তিনি বলেন, নির্বাচন কমিশনকে পরিষ্কার করে বলেছি, দেশের মানুষ আপনাদেরকে যে ক্ষমতা দিয়েছে সংবিধানের মাধ্যমে সেই ক্ষমতা অনুযায়ী আপনারা নিরপেক্ষভাবে নির্বাচন পরিচালনা করবেন। কারো কথা শুনবেন না। প্রয়োজনে আপনি সেই সমস্ত মন্ত্রণালয়গুলো আপনার হাতে নিয়ে নেবেন, যেই সমস্ত মন্ত্রণালয়গুলোতে কারচুপি করার সম্ভাবনা থাকে অথবা প্রভাব বিস্তার করতে পারে।

শুক্রবার বিকেলে গাজীপুরের কাপাসিয়া উপজেরার ঘাঘটিয়া ওয়েলফেয়ার মাঠে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সাবেক সদস্য ও সাবেক মন্ত্রী ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) আ স ম হান্নান শাহ’র প্রথম মৃত্যু বার্ষিকী উপলক্ষ্যে আয়োজিত স্মরণসভায় তিনি এসব কথা বলেন।

মির্জা ফখরুল বলেন, আমরা নির্বাচন করতে চাই। জনগণের ভোটের অধিকার প্রতিষ্ঠা করতে চাই। সেজন্য একটা লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড তৈরি করতে হবে। সবার জন্য সমান সুযোগ, সমান অধিকার দিতে হবে।

বিএনপির মহাসচিব আওয়ামী লীগের উদ্দেশ্যে বলেন, সব সময় বলেছি, আমরা সংঘাত চাই না, সংলাপ চাই, সমঝোতা চাই। তত্ত্বাবধায়ক সরকার বাতিল করে ২০১৪ সালের একতরফা নির্বাচনের মাধ্যমে ১৫৪ জনকে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত করে যে অপকর্ম আপনারা করেছেন তা ভুলে যান। আলাপ আলোচনা করেন, আমরা একটা পথ বের করি। যে পথ দিয়ে আমরা সুষ্ঠ ও শান্তিপূর্ণ একটা নির্বাচন করতে পারি। যে নির্বাচনে সবাই অংশগ্রহণ করবে, তাতে জনগণ তাদের ভোট দিতে পারবে।

কাপাসিয়া উপজেলা বিএনপির সভাপতি মো. খলিলুর রহমানের সভাপতিত্বে স্মরণ সভায় আরও বক্তব্য দেন, হান্নান শাহের ছোট ছেলে শাহ রিয়াজুল হান্নান, বিএনপির কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক মিলন ও শ্যামা ওবায়েদ, বিএনপির কেন্দ্রীয় সদস্য হাসান উদ্দিন সরকার, জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক কাজী ছাইয়েদুল আলম বাবুল, কেন্দ্রীয় সদস্য হুমায়ুন কবির খান, সাখাওয়াত হোসেন সবুজ,মিজানুর রহমান, মো. মুজিবুর রহমান ও ডা. মাজহারুল আলম, জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি আজিজুর রহমান পেরা, কাপাসিয়া থানা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক সাখাওয়াত হোসেন সেলিম প্রমুখ।

সময়ের কণ্ঠস্বর/রবি