প্রেমিককে বাঁচাতে গিয়ে প্রাণ গেল প্রেমিকারও

আন্তর্জাতিক ডেস্ক- প্রেমিক রেল লাইনে ঝাঁপ দিয়ে আত্মহত্যা করতে যাচ্ছিলেন। তখনই তাঁকে বাঁচাতে যান প্রেমিকা। এ সময় দু’জনেরই মৃত্যু হয়েছে। শনিবার রাতে ঘটনাটি ঘটে নদিয়ার চাকদহ থানার শিমুরালি রেল স্টেশন সংলগ্ন রুকপুর এলাকায়।

মৃত যুবকের নাম প্রণব সরকার (২৭) ও যুবতীর নাম কল্যাণী হালদার (১৯)। কল্যাণী হালদার শিমুরালি উপেন্দ্র বিদ্যাভবন বালিকা বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির ছাত্রী। অন্যদিকে সান্যালচড় বাবলাতলা এলাকার বাসিন্দা প্রণব সরকার, তিনি ছিলেন পেশায় কাঠমিস্ত্রি।

কল্যাণীর এক বান্ধবীর দাদা ছিলেন প্রণব। সেই সূত্রেই দু’জনের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। কিন্তু সেই সম্পর্কের বিষয়ে কিছুই জানতেন না দুই পরিবারের লোকজন। শনিবার সন্ধ্যায় ঠাকুর দেখতে যাবে বলে বাড়ি থেকে বেরিয়েছিল কল্যাণী। কিন্তু রাতে কল্যাণী বাড়ি না ফেরায় তার সন্ধান শুরু করে পরিবার।

এর পরেই গভীর রাতে রুকপুরের কাছে রেল লাইনের উপরে দু’টি মৃতদেহ পড়ে থাকার খবর আসে কল্যাণীর পরিবারের কাছে। পরে খবর পেয়ে দেহ দু’টি উদ্ধার করে নিয়ে আসে রানাঘাট জিআরপি। মৃতদের পরিবারের দাবি, প্রণব ও কল্যাণীর মধ্যে প্রেমের সম্পর্কের কথা তারা জানত না।

রুকপুর এলাকার স্থানীয় লোকেদের কাছ থেকে মৃতদের পরিবার জানতে পারে, দীর্ঘক্ষণ কোনও বিষয় নিয়ে রুকপুর রেল লাইনের পাশে দাঁড়িয়ে নিজেদের মধ্যে বচসা চলছিল প্রণব ও কল্যাণীর।

তাঁদের প্রাথমিক অনুমান, প্রথমে ট্রেনের সামনে ঝাঁপ দিয়ে আত্মহত্যা করার চেষ্টা করেন প্রণব। তাঁকে বাঁচাতে উদ্যোগী হলে ট্রেনের ধাক্কা লাগে কল্যাণীরও। ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় দু’জনের। তবে কী কারণে এই আত্মহত্যা, তা নিয়ে এখনও ধোঁয়াশায় পুলিশ।

সময়ের কণ্ঠস্বর/রবি