ঠাকুরগাঁওয়ে জেএসসি-জেডিসি পরীক্ষায় নকলের উৎসব

কামরুল হাসান, ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি:

ঠাকুরগাঁওয়ে শিশুদের পাবলিক কেন্দ্র পরীক্ষা শান্তিপূর্ণ ভাবে অনুষ্ঠিত হচ্ছে। তবে গ্রাম অঞ্চলের কেন্দ্র গুলোতে পরীক্ষায় ব্যাপক হারে নকলের প্রবণতা দেখা দিয়েছে। বিশেষ করে মাদ্রাসার ছাত্র-ছাত্রীরা পরীক্ষায় অসদুপায় অবলম্বনে হাত বাড়িয়েছে । নকলে সহযোগিতা করছে কিছু সংখ্যক শিক্ষক বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

শনিবার সদর উপজেলার খোশবাজার এসডি কামিল মাদ্রাসায় অনুষ্ঠিত হচ্ছিল জেডিসির গণিত বিষয় পরীক্ষা । এই কেন্দ্রে দেখা গেছে নকলের উৎসব। কেন্দ্রের উত্তর, পশ্চিম ও দক্ষিণ প্রান্তে অসংখ্য মানুষের দৌড়ঝাপ লক্ষ্য করা যায়। স্থানীয়রা ও পরীক্ষা দেখতে আসা মানুষের অভিযোগ এবার জেডিসি পরীক্ষায় এ কেন্দ্রে নকলের সয়লাভ। পরীক্ষার্থীদের অভিভাবক তাদের ছেলে-মেয়েদের নকল সরবরাহ দিচ্ছে। আর এই অনৈতিক কাজে সহযোগিতা করছে কিছু সংখ্যক শিক্ষক।

কেন্দ্রের পাশে বাড়ি আবুল কালামের। তার বয়স ৩৫/৩৭। তিনি অভিযোগ করে বলেন এবার এ কেন্দ্রে যে ভাবে নকল চলছে অতীতকে ছাড়িয়ে গেছে। একই অভিযোগ করেন সদর উপজেলার কিসমত চামেশ্বরী গ্রামের জিয়াউর রহমান। তবে এই অভিযোগ আমলে নেয়নি কেন্দ্রের সচিব মো: খায়রুজ্জামান। কেন্দ্রে তত্বাবধায়ক ও সদর উপজেলার সমাজ সেবা কর্মকর্তা শরিফুল ইসলাম বলেন তিনি তার দায়িত্ব সঠিক ভাবে পালন করছেন।

অন্যদিকে সালন্দর আলিয়া মাদ্রাসা কেন্দ্রে দেখা যায় একই চিত্র। জেডিসির পাশাপাশি জেএসসির উপজেলা পর্যায়ের কিছু কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত পরীক্ষায় নকল প্রবণতা লক্ষ্য করা গেছে।

জেলা শিক্ষা অফিস সূত্রে জানা গেছে এবার এ জেলায় জেডিসির ৭টি কেন্দ্রে ২৩ হাজার ৭শত ৯১ জন ছাত্র-ছাত্রী এবং জেএসসি ২২ টি কেন্দ্রে ৩২ হাজার ছাত্র-ছাত্রী পাবলিক পরীক্ষায় অংশ নিয়েছে।

পরীক্ষায় নকল বিষয়ে জেলা শিক্ষা অফিসার মো. শাহীন আকতার বলেন কেন্দ্র সচিবের দায়িত্ব তা দেখার।