স্বামী-স্ত্রী পরিচয়ে বাসা ভাড়া নেবার দিন পাচেক পরই মিললো হাত-পা বাধা যুবতীর গলাকাটা লাশ !

গাজীপুর প্রতিনিধি : গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার তেলিরচালা এলাকা একটি বাড়ীর ৪তলা বাসা থেকে হাত-পা বাঁধা অবস্থায় গলা কাটা এক যুবতীর লাশ উদ্ধার করা হয়েছে।

রোববার বিকেলে স্থানীয় ফজলুল হকের বাড়ী থেকে থানা পুলিশ নিহত  নাজমা আক্তার বুলবুলী বেগম (২৫) এর লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠায়।

নিহত বুলবুলী টাঙ্গাইলের মধুপুর থানার হলদুয়া গ্রামের আজমত আলীর মেয়ে। স্থানীয় বে-ফুটওয়ার লিমিটেড কারখানার কর্মী ছিলেন তিনি।

এলাকাবাসী ও পুলিশ সুত্রে জানা যায়, তেলিরচালা এলাকার বে-ফুটওয়ার লিমিটেড কারখানার জাহাঙ্গীর আলম নামে জনৈক এক কর্মী ৫/৬ দিন আগে স্বামী-স্ত্রী পরিচয়ে স্থানীয় ফজলুল হকের ৪ তলার একটি কক্ষ ভাড়া নেয়।

রোববার সকালে ওই কক্ষ থেকে দুর্গন্ধ বের হলে স্থানীয়রা তালা ভেঙ্গে রান্নাঘরের পাশে লাশটি দেখতে পায়।

নিহতের পরনের ওড়না দিয়ে হাত-পা বাঁধা ছিল। ঘটনার পর থেকে জাহাঙ্গীর আলম পলাতক রয়েছেন।
পুলিশ লাশ উদ্ধার গাজীপুর শহীদ তাজ উদ্দীন আহমেদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠায়। প্রাথমিক তদন্তের ভিত্তিতে পুলিশের ধারণা, বুলবুলীকে ৩/৪দিন আগে ধর্ষণের পর হত্যা করা হয়েছে।

পরকীয়াকে কেন্দ্র করে হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটতে পারে বলেও পুলিশের ধারণা।

তবে ওই নারী এর আগে কোথায় ছিল তা নিশ্চিত করা যায়নি। জাতীয় পরিচয়পত্রে নিহতের স্বামীর নাম আজিজুল ইসলাম উল্লেখ রয়েছে।

কালিয়াকৈর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রফিকুল ইসলাম জানান, জাতীয় পরিচয়পত্র এবং কারখানার আইডি থেকে নিহতের পরিচয় নিশ্চিত করা হয়েছে।