বুড়িচংয়ে জামায়াত শিবিরের সশস্ত্র হামলায় গুরুতর আহত ৩ আ.লীগ কর্মী

আক্কাস আল মাহমুদ হৃদয়, বুড়িচং (কুমিল্লা) প্রতিনিধি:
কুমিল্লা বুড়িচং উপজেলার কালাকচুয়ায় মঙ্গলবার দুপুর পৌনে ২ টায় মৈশান বাড়ী সংলগ্ন মাছের প্রজেক্টে এঘটনা ঘটেছে বলে জানা যায়

আহত আওয়ামীলীগ কর্মী স্থানীয় প্রত্যক্ষদর্শী দেলোয়ার জুবায়ের, আরিফ, বাবু মৈশান সহ একাধীক এলাকাবাসীর বরাত দিয়ে জানা যায়। উপজেলার কালাকচুয়া মৈশান বাড়ীর মোঃ আলী আক্কাস মিয়ার ছেলে আওয়ামীলীগ কর্মী ইয়াকুব (৩০) প্রতিদিনের মতই মাছের ফিসারিতে খাবার দিচ্ছিল। এসময় তার সাথে ফিসারতে অবস্থান করছিলো একই গ্রামের মনিন্দ্র দেবনাথের ছেলে হিমাংশু (৩৮) এবং ডাকলাপাড়া গ্রামের আকমত আলীর ছেলে মতিন।  হঠাৎ করে দুপুর আনুমানিক পৌনে ২টায় পুকুরপাড়ে আসে স্থানীয় শিবির কর্মী খায়ের সহ  ১০/১২জন সশস্ত্র জামায়াত কর্মী এসে তাদের ঘিরে ফেলে। এসময় একজন শিবির কর্মী স্থানীয় জামায়াত নেতা হুমায়ুন মাষ্টার ও তার ভাই মনির কে ফোন দেয়। এবং বলতে থাকে ” হেলো হহুমায়ুন ভাই ধরছি তিনডারে” অপর দিক থেকে কিছু একটা বলার পরই খায়ের বলে “বহুদিন পরে পাইছি তোরারে” এর পরই শুরু হয় মারধর, লোহার রড, জি আই পাইপ  দিয়ে এলোপাথাড়ি মারধর শুরু করে কয়েক শিবির কর্মীরা । একপর্যায়ে ঞ্জান হারিয়ে ফেললে তাদের কে উঠিয়ে নিয়ে  যাওয়া হয় কালাকচুয়া মাদ্রাসায়। কালাকচুয়া মাদ্রাসার একটি কক্ষে আটকে রেখে জামাত শিবির নেতা মনির ও মুহিব সহ কয়েকজন মারধর করে  তাদের। খবর পেয়ে পরিবারের লোকজন এবং এলাকাবাসী তাদের উদ্ধার করে রক্তাক্ত ও গুরুতর আহত অবস্থায় কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যায়। এ রিপোর্ট লেখার সময় এলাকায় আওয়ামীলীগ নেতাকর্মীদের মাঝে ব্যাপক  উত্তেজনা বিরাজ করছিলো।
এবিষয়ে স্থানীয় জামাত শিবির নেতা হুমায়ুন, মুনির ও মুহিবের সাথে যোগাযোগ করার একাধিকবার চেষ্টা করেও সম্ভব হয় নি

এবিষয়ে বুড়িচং উপজেলা সেচ্ছাসেবকলীগ এর সাধারণ সম্পাদক বাবু কিংকর দেবনাথ জানান “মুলত
এই এলাকাটিতে জামায়াত শিবিরের একটি শক্ত ঘাটি রয়েছে। জামায়াত নেতা হুমায়ুন মাষ্টার ও মুহিব সহ বেশ কিছু শিবির কর্মীর নামে পেট্রোল বোমা হামলা নাশকতামূলক কর্মকান্ড সহ নানা অভিযোগে একাধীক মামলাও রয়েছে। এতোদিন গা ঢাকা দিয়ে থাকলেও তারা আবার প্রকাশ্যে আসার চেষ্টা করছে।” তিনি এ হামলার তিব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে জামাত শিবিরের নাশকতা ও সন্ত্রাসী কর্মকান্ড কে প্রতিহত করা  হবে বলেও জানান।
ময়নামতি ইউনিয়ন যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক আবুল কালাম আজাদ বলেন ” বিগত দিনে নাশকতা ও মহাসড়কে গাড়ী ভাংচুর, পেট্রোল বামা হামলা এবং পুলিশ সদস্যদের আহত করে শিবির কর্মীরা।  এ এলাকার কিছু শিবরি কর্মীকে প্রতিহত করা সহ পূর্বশত্রুতার জেরে এবং তৎকালীন সময়ে প্রশাসনকে সহায়তা করায় আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীর ওপর সন্ত্রাসী হামলা চালিয়েছে শিবির কর্মীরা। বিষয়টি স্থানীয়  প্রশাসন কে জানানো হয়েছে এবং যে কোন মুল্যে জামাত শিবির কে প্রতিহত করা হবে “।

বুড়িচং থানাধীন দেবপুর ফাঁড়ী পুলিশের আই সি মঞ্জুর কাদের ভুইঞা বলেন ” বিষয়টি দলীয় কি না তা নিশ্চিত নয়। তবে গন্ডগোলের খবর পেয়ে সাথে সাথে ঘটনাস্থলে ফোর্স পাঠানো হয়েছে তবে ঘটনাস্থলে কাউকে পাওয়া যায় নি ” আহত তিনজন বর্তমানে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তী রয়েছে। এবিষয়ে মামলার প্রক্রিয়া চলছে বলে জানা গেছে ভুক্তভোগীদের বরাত দিয়ে।