নোয়াখালী সেনবাগে ছাত্রীর শ্লীলতাহানির দায়ে শিক্ষকের ১ বছরের কারাদন্ড

মো: ইমাম উদ্দিন সুমন, ষ্টাফ রির্পোটার: নোয়াখালীর সেনবাগে পিএসসি পরীক্ষা চলাকালে গাজীরহাট কেন্দ্রে ছাত্রীর শ্লীলতানীর অভিযোগ প্রমানিত হওয়ায় ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার শারমিন আলম অভিযুক্ত শিক্ষক মো: ইব্রাহিম (২৯) কে ১ বছরের বিনাশ্রম কারাদন্ড দিয়েছেন।মঙ্গলববার বিকেল সাড়ে ৪ টায় উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়ে এ দন্ড ঘোষনা করা হয়। পরে তাকে সেনবাগ থানার মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরন করা হয়েছে।

ভ্রাম্যমান আদালত সূত্রে জানা যায়, মঙ্গলবার পিএসসি পরিবেশ পরিচিতি সমাজের পরীক্ষা চলাকালে গাজীরহাট উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রের ৩ নং হলে দায়িত্ব পালন করছেন খলিপাপাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মো: ইব্রাহিম। ওই হলে পরীকোট সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ছাত্রীরা অংশ নেন।

পরীক্ষা শেষ হবার ৩০ মিনিট আগে ওই শিক্ষক ছাত্রীকে দাঁড় করিয়ে শারিরীকভাবে শ্লীলতাহানী করে। এভাবে সে আরো কয়েকটি ছাত্রীর সাথে এধরনের আচরনের অভিযোগ উঠে। পরীক্ষা শেষে কয়েকজন ছাত্রী কেন্দ্রের দায়িত্বপ্রাপ্ত ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ও জাইকার সেনবাগ প্রতিনিধি আতিকুল ইসলামকে বিষয়টি অবগত করেন।

এ সময় তিনি – কেন্দ্র সচিব সহ অন্যান্যরা মিলে ডেকে অফিস রুমে আটক রাখেন। পরে উপজেলা নির্বাহী অফিসার সহ সংশ্লিষ্ট দপ্তরের সহায়তায় শ্লীলতাহানীর শিকার ছাত্রীর অভিভাবক সহ অপরাপর শিক্ষক,শিক্ষা অফিসারের উপস্হিতিতে ভ্রাম্যমান আদালতে অভিযুক্ত শিক্ষক মো: ইব্রাহিম দোষ স্বীকার করলে দন্ডবিধি ৫০৯ ধারায় তাকে ১ বছরের বিনাশ্রম কারাদন্ডের আদেশ দেন ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার শারমিন আলম।
মো: ইব্রাহিম ডমুরুয়া ইউপির নলুয়া গ্রামের আব্দুর রবের পুত্র।