শিবগঞ্জে ৪ ইটভাটায় হামলা-ভাংচুরের অভিযোগে আ.লীগ নেতা আটক

মো. কামাল হোসেন, শিবগঞ্জ প্রতিনিধি:
চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জে ৪টি ইট ভাটায় হামলা চালিয়ে ভাংচুর করেছে স্থানীয়রা। এ ঘটনায় একজনকে আটক করেছে পুলিশ। আটক ব্যক্তি হল- কয়লাদিয়াড় এলাকার আলতাফ হোসেনের ছেলে জেনারুল ইসলাম। জানাগেছে,শ্যামপুর ইউনিয়নের কয়লা দিয়াড়ের ৪ টি ইট ভাটায় শুক্রবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে হামলা চালায় স্থানীয়রা।

ইটভাটার মালিক আবু তালেবের ছেলে সোহেল রানা জানান, শ্যামপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক জেনারুল ইসলামের নেতৃত্বে একদল সন্ত্রাসী অর্তকিত হামলা চালায় । তারা হামলা চালিয়ে সেভেন স্টার,সাথী,সনি-বি ও সনি ২ ভাটায় ব্যাপক ভাংচুর চালিয়ে লুটপাট করা হয়। এসময় তারা দেশীয় অস্ত্র নিয়ে ইটভাটার ইস্ট ক্যাপটির ড্রেজার মেশিন, বিদ্যুৎ পাওয়ার ফ্যাক্টর,৩টি ইট কাটার অটোমেশিন, ১১ টি পানির পাম্প, ১ টি মোটরসাইকলে, ১ টি ট্রাক্টর, ৮ টি শ্যালো মেশিন, ৬ টি টিউবওয়েল, কয়েকটি ভ্যান ও বাইসাইকেলসহ ৪ টি ইটভাটার ব্যবহৃত আসবাবপত্র ভাংচুর করে ।

 

এসময় তারা র্কমচারীর মাসিক বেতন দেয়ার জন্য রাখা নগদ ৩০ লাখ টাকা লুটসহ প্রায় ২ কোটি পঞ্চাশ লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি করে। শিবগঞ্জ থানার ওসি হাবিবুল ইসলাম হাবিব ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান,৪টি ইট ভাটায় হামলা চালিয়েছে দুবৃত্তরা। হামলার অভিযোগে একজনকে আটক করা হয়েছে। এ ঘটনায় ৪টি ভাটা মালিকের পক্ষ থেকে থানায় মামলা দায়েরের প্রক্রিয়া চলছে।

শিবগঞ্জে প্রেমিকাকে দেখে নববধূকে ফেলে দৌড় দিলেন সরকারি স্কুল শিক্ষক

চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ সরকারি মডেল হাই স্কুলের সহকারি শিক্ষক ও বিনোদপুর ইউনিয়নের পাঁকাটোলা গ্রামের আবুল কাশেমের ছেলে সাকিউর রহমান সিকোর বিয়ে হয় পৌর এলাকার লাগাদপাড়া গ্রামের ডাক্তার কামাল উদ্দিনের কলেজ পড়ুয়া মেয়ের সঙ্গে। শুক্রবার জুম্মার নামাজের আগেই পারিবারিক ভাবে তাদের বিয়ে সম্পন্ন হয়। এরপর খবর যায় ওই শিক্ষকের প্রেমিকা শিবগঞ্জ বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির স্কুল ছাত্রীর কাছে।

দুপুরেই কণের বাড়িতে বাবাসহ হাজির হয় কালুপুর গ্রামের ওই স্কুল পড়ুয়া দশম শ্রেণির ছাত্রী। বর সাকিউর রহমান সিকো বিষয়টি টের পেয়ে নববধূকে ফেলে রেখেই দৌড়ে পালিয়ে যায়। এরপর বিয়ে বাড়িতে পড়ে যায় হৈ-চৈ। ঘটনাটি জানতে পেরে স্থানীয়রা ভিড় জমায় বিয়ে বাড়িতে এবং পুরো উপজেলায় চাঞ্চলকর সৃষ্টি হয়। পরে খবর দেয়া হয় স্থানীয় প্রশাসনকে।

 

বিয়ে বাড়িতে উপস্থিত হন থানা পুলিশসহ উপজেলা প্রশাসনের প্রতিনিধিরা। ঘটনাস্থলে কালুপুর গ্রামের প্রেমিকা দাবিদার স্কুল ছাত্রী জানান, শিক্ষক সাকিউর রহমানের সঙ্গে দুই বছরের প্রেমের সম্পর্কের কথা। তার দাবি- বিয়ের আশ্বাস দিয়ে ওই শিক্ষক প্রতারণা করে তাকে।

 

এরপর থানা পুলিশের আশ্বাসে বিকেলে মেয়ে তার বাবাকে নিয়ে হতাশা হয়ে বিয়ে বাড়ি ছেড়ে নিজ বাড়ি চলে যান। এবিষয়ে জানতে চাইলে শিবগঞ্জ থানার এসআই কামরুজ্জামান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, যেহেতু বিয়ে সম্পন্ন হয়ে গেছে সে জন্য নববধূকে বরের লোকজনের সঙ্গে শ্বশুর বাড়িতে পাঠিয়ে দেয়া হয়েছে।

 

এবিষয়ে শিক্ষক সাকিউর রহমান সিকোর বক্তব্য জানতে মুঠোফোনে যোগাযোগ করেও তার ফোনটি বন্ধ থাকায় বক্তব্য জানা সম্ভব হয়নি।