কুষ্টিয়ায় জুয়ার আসরে মধ্যরাতে অভিযান, আটক ২

এস.এম.আবু ওবাইদা-আল-মাহাদী, কুষ্টিয়া প্রতিনিধি– গত কয়েকদিন জুয়ায় বুদ হয়ে থাকা কুষ্টিয়াবাসীকে রক্ষায় অবশেষে তৎপর হলো জেলা প্রশাসন।

মধ্যরাতে জুয়ার আসরে হঠাৎ অভিযান চালিয়ে দুইজনকে আটক করা হয়েছে। জব্দ করা হয়েছে লোভনীয় পুরস্কার সামগ্রীও। সচেতন মহল ও সামাজিক গণমাধ্যম ফেসবুকে সমলোচনার ঝড় ওঠার পর নড়েচড়ে বসে প্রশাসন।

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় সরেজমিনে দেখা যায়, চৌড়হাস, কুষ্টিয়া স্টেডিয়াম সংলগ্ন রোড, মজমপুর গেট, সাদ্দাম বাজারসহ শহরের গুরুত্বপূর্ণ এলাকাগুলোতে রিকশা ও অটোরিকশায় মাইকিং করে বিক্রি হচ্ছে টিকেট। ভাগ্য পরীক্ষার আহ্বান জানানো হচ্ছে মাইকে। আহ্বানে সাড়াও মিলছে চোখে পড়ার মতো। প্রতি টিকেটের মূল্য ২০ টাকা। অথচ একেকজন ৫টি থেকে শুরু করে ৫০-১০০ টিকেটও কিনছেন।

টিকেট কিনতে আসা কয়েকজনের সঙ্গে কথা বলে দেখা গেছে তারা দিনমজুর। সারাদিনের উপার্জিত অর্থের অর্ধেক দিয়েই কিনছেন এসব টিকেট। টিকেট কিনে রাত ১১টা পর্যন্ত অপেক্ষা। পরে শূন্য হাতে, ভাঙা হৃদয়ে বাড়ির ফেরায় যেন তাদের নিত্যনৈমিত্তিক ঘটনা হয়ে দাঁড়িয়েছিলো। অবশেষে রাত ১২টার দিকে জেলা প্রশাসক মো. জহির রায়হানের নির্দেশে অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মোস্তাক আহমেদের নেতৃত্বে অভিযান চালিয়ে প্রকাশ্যে জুয়া চালানোর অপরাধে দুইজনকে আটক করে।

আটককৃতরা হলেন, কুষ্টিয়া থানা পাড়া এলাকার নিজাম উদ্দীনের ছেলে মিজানুর রহমান ভিজা ও জয়পুরহাট এলাকার বকুল হোসেনের ছেলে আহসান হাবিব। তাদের এক মাস করে কারাদণ্ড প্রদান করেন ভ্রাম্যমান আদালতের হাকিম নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মোঃ রবিউল আলম। সেখান থেকে ১৬টি মটরসাইকেল, তিনটি বাই সাইকেল, তিনটি ড্রেসিংটেবিল, দুইটি ওয়ালটন ফ্রিজসহ পুরুষ্কারের জন্য রাখা বিভিন্ন উপহার সামগ্রী জব্দ করা হয়।

লটারী ও নিস্যকারী জুয়ার আসর বন্ধ করে দেওয়ায় কুষ্টিয়ার সুযোগ্য জেলা প্রশাসক মো: জহির রায়হান মহোদয় ও কুষ্টিয়ার সুযোগ্য পুলিশ সুপার এস এম মেহেদী হাসান বিপিএম, পিপিএম (সেবা) কে সচেতন মহল ও কুষ্টিয়াবাসী ধন্যবাদ ও শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।

সময়ের কণ্ঠস্বর/রবি