স্বল্প অর্থায়নে ভালো গল্পের সিনেমা ‘চল পালাই’: নির্মাতা দেবাশীষ বিশ্বাস

বিনোদন প্রতিবেদক, সময়ের কণ্ঠস্বর- ‘শশুরবাড়ি জিন্দাবাদ’ খ্যাত নির্মাতা দেবাশীষ বিশ্বাস এবার নির্মান করছেন ‘চল পালাই’ নামের নতুন একটি সিনেমা। আগামীকাল ৮ই ডিসেম্বর প্রেক্ষাগৃহে উন্মুক্ত হতে যাচ্ছে সিনেমাটি।

থ্রিলার ধাচের এ সিনেমাটিতে পর্দায় দেখা মিলবে শিপন মিত্র, তমা মির্জা ও শাহরিয়াজকে। ‘চল পালাই’ সিনেমাটির নানা বিষয়ে কথা হয় এ নির্মাতার সাথে। তার কিছু অংশ তুলে ধরা হলো-

প্রশ্ন: ‘চল পালাই’ সিনেমাটির প্রচারনা সম্পর্কে বলুন?

দেবাশীষ বিশ্বাস: আমার স্বল্প জ্ঞান থেকে বলছি, বাংলাদেশে আমার চেয়ে বেশি কেউ সিনেমার প্রচারনা করে না। সবাই যদি পাঁচ হাজার পোষ্টার করে আমি সেখানে করি পঞ্চাশ হাজার। এছাড়া এতো বছর ধরে কাজ করছি মিডিয়ায় সেই জায়গা থেকে প্রতিটি টেলিভিশন, পত্রিকা, রেডিও, অনলাইন নিউজ পোর্টালের সঙ্গে একটা সখ্যতার জায়গা তৈরি হয়েছে। তাদের সাপোর্ট আগেও পেয়েছি এখনও পাচ্ছি।

প্রশ্ন: কি ধরনের গল্পে নির্মিত হয়েছে সিনেমাটি?

দেবাশীষ বিশ্বাস: ‘চল পালাই’ নামের সাথে গল্পের মিল রয়েছে। পালানোর একটা ব্যাপার আছে। গল্পে দেখা যাবে শিপন তমা মির্জাকে ভালবাসে কিন্তু এ প্রেমে বাধা হয়ে দাঁড়ায় তমার বাবা। শিপন তমার বাবার চোখ ফাঁকি দিয়ে তমাকে নিয়ে পালিয়ে যায়। পালানোর পথে সাহায্য করে শাহরিয়াজ। শাহরিয়াজ একটা সময় তমাকে ভালবেসে ফেলে তাই শিপনকে ফাঁকি দিয়ে তমাকে নিয়ে পালিয়ে যায় শাহরিয়াজ। এরপর তমা উদ্ধার হবে নাকি শাহরিয়াজের কাছে থাকবে তা জানতে হলে দর্শকদের হলে যেতে হবে।

প্রশ্ন: এরকম একটি গল্পে শিপন, তমা ও শাহরিয়াজকে নেওয়ার কারন কি?

দেবাশীষ বিশ্বাস: সিনেমার গল্পটি যে ধাচের এখানে প্রতিটি চরিত্রের সাথে শিপন, তমা ও শাহরিয়াজ মানানসই। সেই জায়গা থেকে গল্পের প্রয়োজনে এই তিনজনকে নেওয়া।

প্রশ্ন: আপনার পূর্বের সিনেমা বেশ দর্শকপ্রিয়তা পেয়েছে, আপনার নামের কারনেও দর্শকদের বেশ আকর্ষণ থাকবে সেই জায়গা থেকে নতুন এ সিনেমাটিকে ঘিরে আপনার প্রত্যাশা কেমন?

দেবাশীষ বিশ্বাস: একজন ডিরেক্টর যখন সিনেমা নির্মান করেন অবশ্যই তখন থেকেই তার প্রত্যাশা থাকে তার সিনেমা সফল হবে। আমিও এর ব্যতিক্রম নয়। ‘চল পালাই’ একটি অল্প বাজেটের সিনেমা। আমি ‘চল পালাই’ এর মাধ্যমে চেষ্টা করেছি স্বল্প অর্থায়নে বৃহৎ কিছু করার, অল্প অর্থে ভালো গল্প নির্ভর সিনেমা বানানো যায় সেটা দেখানোর চেষ্টা করেছি। সেই জায়গা থেকে আমার সিনেমাটি যদি মানুষ দেখে, ভালবাসে তাহলেই অনেক কিছু পেয়ে যাবো।

প্রশ্ন: এই ছবিতে কি এমন বিশেষ কিছু আছে যার কারনে দর্শক হলে গিয়ে ছবিটি দেখবে?

দেবাশীষ বিশ্বাস: বিশেষ কিছু বলতে বললাম, স্বল্প অর্থায়নে ভালো গল্পের সিনেমা ‘চল পালাই’। তথাকথিত সিনেমা থেকে আলাদা, তথাকথিত রোমান্টিক সিনেমা না, তথাকথিত সামাজিক সিনেমাও না। এটি একটি থ্রিলারধর্মী সিনেমা। টানটান উত্তেজনাটাই বেশি।

উল্লেখ্য, দেবাশীষ বিশ্বাসের আরো একটি পরিচয় রয়েছে। তিনি একজন সফল উপস্থাপক। ‘পথের প্যাঁচালি’ ও ‘ক্লোজআপ ওয়ান তোমাকেই খুঁজছে বাংলাদেশ’ উপস্থাপনার মধ্য দিয়ে উপস্থাপক হিসেবে খ্যাতি অর্জন করেন। সম্প্রতি উপস্থাপকদের নিয়ে গঠিত হয়েছে নতুন একটি সংগঠন ‘প্রেজেন্টার্স প্ল্যাটফর্ম অব বাংলাদেশ’ (পিপিবি)। এই সংগঠনটির সাংগঠনিক সম্পাদকের দ্বায়িত্ব পেয়েছেন এ নির্মাতা।

এনএটি/রবি