‘একবার প্রস্তাব দিয়ে যে ঝাড়িটা খেয়েছি আর প্রস্তাব দেওয়ার ইচ্ছা নেই’

নিজস্ব প্রতিবেদক, সময়ের কণ্ঠস্বর- প্রায় আট মাস পর সংবাদ সম্মেলন করছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বৃহস্পতিবার বিকাল চারটা ১০মিনিটে সরকারি বাসভবন গণভবনে এই সংবাদ সম্মেলন শুরু হয়। আনুষ্ঠানিক ব্রিফিং শেষে উপস্থিত সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাব দেন প্রধানমন্ত্রী।

বিএনপি একটি নির্দলীয় সরকার চায়, এক্ষেত্রে তাদের নির্বাচনে আনতে সরকার প্রধান হিসেবে কোনও অবদান রাখবেন কিনা- এমন প্রশ্নে প্রধানমন্ত্রী বলেন, কার সঙ্গে আলোচনা? কিসের প্রস্তাব! একবার প্রস্তাব দিয়ে যে ঝাড়িটা খেলাম আর প্রস্তাব দেওযার ইচ্ছা নেই। তাকে আর প্রস্তাব দেওয়ার দরকার আাছে বলে মনে করিনা।

তিনি বলেন, তারা (বিএনপি) নির্বচনে আসতে চায় আসবে, এটা তাদের পার্টির সিদ্ধান্ত। এখানে আমাদের কিছু করার নেই। এত সাধাসাধির দরকার কি হলো, আমি বুঝতে পারলাম না।

শেখ হাসিনা বলেন, আর যাই হোক আমি প্রধানমন্ত্রী। তার ছেলে মারা গেল; আমি তার বাড়িতে গেলাম। আমাকে ঢুকেতে দেওয়া হলো না। দরজা বন্ধ করে রাখা হলো।

কম্বোডিয়ার প্রধানমন্ত্রী হুন সেনের আমন্ত্রণে শেখ হাসিনা গত ৩ থেকে ৫ ডিসেম্বর সে দেশ সফর করেন। এ সফর নিয়ে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

এতে বিএনপি চেয়ারপাসন খালেদা জিয়া প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ক্ষমা করে দেয়ার বিষয়ে প্রশ্ন রাখেন বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের (বিএফইউজে) সভাপতি মঞ্জুরুল আহসান বুলবুল।

জবাবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, উনি কি ক্ষমা করেছেন, না চেয়েছেন- এ ক্ষমার বিষয়টি স্পষ্ট নয়। তার উচিত দেশবাসীর কাছে ক্ষমা চাওয়া। কিবরিয়াসহ অনেককে হত্যা করা হয়েছে। ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলায় আমি বেঁচে গিয়েছিলাম, এ জন্য আমাকে ক্ষমা করেছেন?।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমি তার কাছে কী বিষয়ে ক্ষমা চাইব। তার উচিত আমার কাছে ক্ষমা চাওয়া, জনগণের কাছে ক্ষমা চাওয়া।

শেখ হাসিনা আরও বলেন, খালেদার বিরুদ্ধে যে মামলা তা আমাদের সরকার দেয়নি। বরং আমার বিরুদ্ধে তো এক ডজন মামলা দিয়েছে। আর যারা মামলা দিয়েছে মঈন উদ্দিন, ফখরুদ্দিন তাদের নিজেদের লোক। মামলায় থেকে তার পলায়নপর নীতি আপনারা তা দেখেছেন। কোর্টে যাওয়া নিয়েও তাণ্ডব হয়েছে। এর আগে আওয়ামী লীগের এমপির গাড়ি ভাঙচুর করেছে, আগুন দিয়েছে।

কম্বোডিয়ার সফর প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী বলেন, এই সফর দুই দেশের সম্পর্ক গড়ে তুলতে গভীর ভূমিকা রাখবে। এতে দুই দেশের সম্পর্ক আরও দূঢ় হবে। সম্প্রতি আমার কম্বোডিয়া সফরে দুই দেশই লাভবান হবে।

রবি