আরেকবার যদি আমরা রাস্তায় নামি আপনারা কীভাবে দমন করবেন? : ফারুক

সরকার বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে সাজা দিয়ে নির্বাচন থেকে দূরে রাখতে চাইছে অভিযোগ করে বিএনপি নেতা জয়নাল আবদীন ফারুক বলেছেন, তাদের এই আশা কখনো পূরণ হবে না। আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধনে অংশ নিয়ে তিনি এ কথা বলেন। খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে হওয়া মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে এর আয়োজন করে ‘জাতীয়তাবাদী চালক সংগ্রাম দল’ নামের একটি সংগঠন।

জয়নাল আবদীন ফারুক বলেন, খালেদা জিয়া এবং তার দল বিএনপিকে বাইরে রেখে আওয়ামী লীগ ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির মতো নির্বাচনের চিন্তা করে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে। কিন্তু তাদের আশা কোনোদিনও সফল হবে না।’

‘যদি আবারো ৫ জানুয়ারির মতো আরো একটি ষড়যন্ত্রমূলক নির্বাচন করা হয় দেশের ১৬ কোটি মানুষ সেটা গ্রহণ করবে না। এমন কি বিশ্বের কোনো সরকারও গ্রহণ করবে না’, বলেন তিনি।

সরকারকে উদ্দেশ্য করে বিএনপি চেয়ারপারসনের এই উপদেষ্টা বলেন, আগামী নির্বাচন কার অধীনে হবে সেটা বড় কথা নয়। বড় কথা হচ্ছে নির্বাচনে বাংলাদেশের বৃহত্তম রাজনৈতিক দলগুলো অংশগ্রহণ করতে পারবে কী না?

বিএনপিকে কঠোরভাবে মোকাবিলা করা হবে বলে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের বক্তব্যের সমালোচনা করে তিনি বলেন, বিগত কয়েকটি বছর বিএনপিকে কোনো সভা সমাবেশ করতে দেওয়া হয় না, রাজপথে মিছিল করার অনুমতি হয় না, দমনের নামে গুম-খুন করছেন। কোনো কারণ ছাড়াই বেগম খালেদা জিয়ার হাজিরার দিন আপনারা হামলা চালিয়েছেন লাঠিচার্জ করলেন। এর চেয়ে কঠোর আপনারা কী করবেন?

‘আন্দোলন ছাড়াই আপনারা বিএনপির নেতা-কর্মীদের ওপর দমন নিপীড়ন চালাচ্ছেন। আরেকবার যদি আমরা রাস্তায় নামি আপনারা কীভাবে দমন করবেন? গুলি করে আমাদেরকে মারবেন? গ্রেপ্তার করবেন? সেই সাহস আপনাদের নেই’, বলেন তিনি।

আয়োজক সংগঠনের সভাপতি এম এইচ মনিরের সভাপতিত্বে মানববন্ধনে আরো বক্তব্য দেন ন্যাপের মহাসচিব এম গোলাম মোস্তফা ভূইয়া, জিনাফের সভাপতি মিয়া মো. আনোয়ার, ‘দেশ বাঁচাও মানুষ বাঁচাও আন্দোলনে’র সভাপতি কে এম রকিবুল ইসলাম রিপন, ‘ঘুরে দাঁড়াও বাংলাদেশে’র সভাপতি কাদের সিদ্দিকী, সংগঠনের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মো. জসিম উদ্দীন কবির প্রমুখ।