ঘরের বারান্দায় স্ত্রীর মরদেহ, লিচু গাছে স্বামীর

রাজশাহী প্রতিনিধি- রাজশাহীর বাঘা উপজেলায় এক বাড়ির বারান্দা থেকে এক গৃহবধূ এবং বাড়ির পাশের এক লিচু গাছ থেকে তার স্বামীর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার সকাল ৯টায় উপজেলার পাকুড়িয়া গ্রাম থেকে ওই দম্পতির লাশ উদ্ধার করা হয়। প্রাথমিক ধারণা থেকে পুলিশ বলছে, স্ত্রীকে হত্যার পর স্বামী আত্মাহত্যা করেছেন বলে তাদের মনে হয়েছে।

নিহতরা হলেন- বাঘা উপজেলার পাকুড়িয়া গ্রামের আবদুল মান্নান (৪৮) ও তার স্ত্রী রুনা খাতুন (৩৮)।

পুলিশ বলছে, আবদুল মান্নান আত্মহত্যা করেছেন বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে। তবে তার স্ত্রীর মৃত্যুর কারণ নিশ্চিত হওয়া যায়নি। মৃত্যুর কারণ নিশ্চিত হতে দুটি লাশেরই ময়নাতদন্ত করা হচ্ছে।

বাঘা থানার ওসি সেলিম রেজা ওই দম্পতির তাদের ১৩ বছরের ছেলের বরাত দিয়ে জানান, রাত ৩টার দিকে ছেলেটি তার দাদির সঙ্গে ঘর থেকে বেরিয়ে বারান্দায় মায়ের লাশ পড়ে থাকতে দেখে। পরে সকালে গ্রামের লোকজন বাড়ি থেকে প্রায় ৩০০ গজ দূরে একটি বাগানে লিচুগাছে ঝুলন্ত অবস্থায় মান্নানের লাশ পায়।

ওই দম্পতির মধ্যে পারিবারিক কোনো জটিলতা চলছিল কি না, গত কয়েক দিনে তাদের মধ্যে ঝগড়া হয়েছিল কি না- সে বিষয়ে পুলিশকে কোনো তথ্য দিতে পারেনি ছেলেটি।

তবে ওসি সেলিম জানান, রুনির শরীরে আঘাতের কোনো চিহ্ন পাওয়া যায়নি। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, স্ত্রীকে খুন করার পর স্বামী গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মাহত্যা করে থাকতে পারেন।

লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। তবে এ বিষয়ে কেউ কোনো অভিযোগ করেননি বলে জানান ওসি।

সময়ের কণ্ঠস্বর/রবি