রাতগভীরে বাড়ি ফিরে স্কুল শিক্ষিকা স্ত্রী আর শিক্ষা কর্মকর্তাকে আপত্তিকর অবস্থায় আটকালেন স্বামী

খুলনা ডেস্ক:
স্বামী জরুরী কাজে ঢাকায় যাবেন। সব গুছিয়ে স্বামীকে বাড়ি থেকে বের করে দিয়েই নিজের পরকীয়া প্রেমিক এক শিক্ষা অফিসারকে গভীররাতে নিজের বাড়িতে অভিসারে ডেকে পাঠায় প্রেমিকা এক স্কুল শিক্ষিকা।

তবে বিধিবাম! হয়তো স্বামী আগে থেকেই সন্দেহ করেছিলেন এমন কিছু অথবা কাকতালীয়ভাবেই ঢাকা না গিয়ে রাতগভীরে চুপিসারে নিজের বাড়িতে ফিরে আসেন স্কুল শিক্ষিকার স্বামী।
হাতে নাতেই ধরে ফেলেন অবিশ্বাসী স্ত্রীর অনৈতিক কর্মকান্ড। স্বামীর ডাকচিতকারে রাতগভীরেই ছুটে আসে প্রতিবেশীরা । আটক হয় স্কুল শিক্ষিকা ও তার পরকীয়া প্রেমিক এক শিক্ষা কর্মকর্তা।
বাড়ি থেকে অসামাজিক কর্মকাণ্ডে লিপ্ত থাকার সময়ে খুলনায় এক শিক্ষা কর্মকর্তা ও শিক্ষিকাকে আটক করা হয়েছে। দুজনকে আটকের ঘটনায় পুরো এলাকাজুড়েই শুরু হয়েছে ব্যপক চাঞ্চল্য।

আটকরা হলেন- সদর থানা সহকারী শিক্ষা কর্মকর্তা (প্রাথমিক) অসীত কুমার বর্মন ও মহানগরের পশ্চিম টুটপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা নুসরাত জাহান পলি।
বৃহস্পতিবার (১৪ ডিসেম্বর) গভীররাতে মহানগরের দক্ষিণ টুটপাড়াস্থ দিলখোলা রোড এলাকার বাসা থেকে প্রথমে এলাকাবাসির হাতে আটকের পর তাদের সদর থানা পুলিশের হেফাজতে দেয়া হয় । এরপর শুক্রবার (১৫ ডিসেম্বর) তাদের আদালতে পাঠানো হয়েছে।

আটক অসীত কুমার বর্মন সাতক্ষীরা জেলা সদরের রাজনগর গ্রামের অমল কুমার বর্মনের ছেলে ও নুসরাত জাহান পলি তালা উপজেলার হরিনগর গ্রামের জাহাতাব উদ্দিন গোলদারের মেয়ে।

এ ঘটনায় শিক্ষিকা নুসরাত জাহান পলির স্বামী এসএম মিজানুর রহমান বাদী হয়ে দু’জনকে আসামি করে মামলা দায়ের করেছেন।

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে খুলনা জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা রমেন্দ্রনাথ পোদ্দার সাংবাদিকদের জানান, শুক্রবার সকালে তিনি দু’জনের আটকের খবরটি শুনেছেন। কিন্তু অফিস ছুটি থাকায় তাদের বিরুদ্ধে আপাতত কোনো পদক্ষেপ নেওয়া যাচ্ছে না। অফিস খুললে রোববার তাদের সাময়িক বরখাস্ত করা হবে। এরপর বিধি অনুযায়ী অন্যান্য পদক্ষেপ দেওয়া হবে।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা খুলনা থানার উপ পরিদর্শক (এসআই) সুব্রত কুমার বাড়ই সাংবাদিকদের বলেন, শিক্ষিকা নুসরাত জাহান পলির স্বামী এসএম মিজানুর রহমান বৃহস্পতিবার রাতে ঢাকায় যাওয়ার উদ্দেশ্যে বাসা থেকে বের হন। কিন্তু তিনি শহরের সাত রাস্তার মোড় পর্যন্ত গিয়ে আবার বাসায় ফেরেন। রাত সাড়ে ৯টার দিকে তিনি বাসায় ফিরে দেখতে পান তার স্ত্রী এবং অসীত কুমার বর্মন অসামাজিক কর্মকাণ্ডে লিপ্ত রয়েছে। এ অবস্থায় এলাকাবাসীর সহযোগিতায় তাদের আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেন তিনি।

তিনি আরও বলেন, তাদের বিরুদ্ধে ৪৯৭, ৫০৬, ৪০৬ ধারায় ব্যাভিচারের মামলা হয়েছে। দু’জনেই বিবাহিত। দীর্ঘ দিন ধরেই তারা অবৈধ সম্পর্কে জড়িয়ে পড়ে বলে এলাকাবাসী অভিযোগ করেছেন।