কালীগঞ্জে স্ত্রী ও শিশু সন্তানকে রেখে স্ব-পরিবারে ভারতে পালিয়েছে স্বামী

আরাফাতুজ্জামান, ঝিনাইদহ প্রতিনিধিঃ স্ত্রী সন্তানকে বাংলাদেশে রেখে ভারতে পালিয়ে গেছে স্বামী সুমন দাস ও তার পরিবারের সদস্যরা। প্রায় তিন মাস আগে স্ত্রী পিংকি দাস ও তার দেড় বছরের ছেলে সৌরভ দাসকে শশুর বাড়িতে কৌশলে পাঠিয়ে দিয়ে জায়গা-জমি বিক্রি করে সুমন ও তার পরিবারের সদস্যরা ভারতে চলে যায়। বর্তমান সুমনের স্ত্রী পিংকি দাস তার বাবার বাড়িতে শিশু সন্তানকে নিয়ে বসবাস করছে। স্বামীকে ফিরে পেতে সে সমাজের দ্বারে দ্বারে ঘুরছে।

ঘটনাটি ঘটেছে ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ উপজেলার ভাটপাড়া গ্রামে। অভিযোগ সূত্রে জানাগেছে, প্রায় তিন বছর আগে কালীগঞ্জ উপজেলার ভাটপাড়া গ্রামের চন্ডি দাসের ছেলে সুমন দাসের সাথে একই উপজেলার কুল্লাপাড়া গ্রামের দেবেন দাসের মেয়ে পিংকির বিয়ে হয়। বিয়ের দেড় বছরের মাথায় তাদের ঘরে একটি পুত্র সন্তান জন্ম নেয়। তার নাম সৌরভ। শশুর বাড়িতে পিংকি তার সন্তান সৌরভ কে নিয়ে ভালভাবেই বসবাস করছিল। কিন্তু প্রায় ৩ তিন মাস আগে স্ত্রী ও সন্তানকে স্বামী সুমন কৌশলে তার বাবার বাড়ি কুল্লাপাড়ায় রেখে আসে। এরপর তারা বাড়ি-ঘর বিক্রি করে দিয়ে স্ব-পরিবারে ভারতে চলে যায়।

পিংকি অভিযোগ করে বলেন, আমাদের কাউকে কিছু না জানিয়ে আমার শশুর তার ছেলেকে নিয়ে ভারতে চলে গেছে। বর্তমানে তারা ভারতের ঠাকুর পল্লীতে রয়েছে। সেখানে নাকি সুমন আরো একটি বিয়ে করবে বলে শুনেছি। তারা যখন চলে গেল তখন আমাকে নিয়ে গেল না কেন? আমি কি অন্যায় করেছি যে আমাকে ফেলে রেখে তারা ভারতে পালিয়ে গেল? আমি এখন শিশু সন্তান নিয়ে কোথায় যাব, কি করবো?

কালীগঞ্জ থানার অফিসার-ইন-চার্জ (ওসি) মিজানুর রহমান খান বলেন, এ ব্যাপারে কেউ কোন অভিযোগ করেনি। অভিযোগ দিলে আইনানুগ ব্যবস্থা নিব।