ছায়েদুল হকের কফিনে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা

সময়ের কণ্ঠস্বর- মৎস্য ও প্রাণিসম্পদমন্ত্রী মোহাম্মদ ছায়েদুল হকের জানাজা রোববার সকালে জাতীয় সংসদ ভবনের দক্ষিণ প্লাজায় অনুষ্ঠিত হয়েছে। জানাজায় রাষ্ট্রপতি, মন্ত্রিপরিষদ সদস্য, জাতীয় সংসদ সদস্য, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দসহ নানা শ্রেণি-পেশার মানুষ অংশগ্রহণ করেন।

জানাজা শেষে রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও সংসদ স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী তার মরদেহের কফিনে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।

জানাজার পর মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে তার প্রতি ঢাকা জেলা প্রশাসকের পক্ষ থেকে রাষ্ট্রীয় সম্মান জানানো হয়। পরে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও সংসদের স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী ছায়েদুল হকের কফিনে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান।

সংসদ ভবন থেকে ছায়েদুল হকে মৃতদেহ হেলিকপ্টারে করে তার নির্বাচনী এলাকা নাসিরনগরে নেওয়ার পর সেখানে আশুতোষ পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে দ্বিতীয় জানাজা এবং তার গ্রামের বাড়ি পূর্বভাগে তৃতীয় জানাজা অনুষ্ঠিত হবে। পরে পারিবারিক কবরস্থানে বাবা-মায়ের কবরের পাশে ছায়েদুল হককে দাফন করা হবে।

উল্লেখ্য, চিকিৎসারত অবস্থায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে (বিএসএমএমইউ) শনিবার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি ((ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। মন্ত্রী ছায়েদুল হক দীর্ঘদিন ধরে জ্বর, ইউরিন ইনফেকশন ও শারীরিক দুর্বলতায় ভুগছিলেন।

মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৭৫ বছর। তিনি স্ত্রী ও এক ছেলে রেখে গেছেন। তার ছেলে রায়হানুল হক ঢাকা মেডিকেল কলেজের প্রভাষক।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া-১ আসনে আওয়ামী লীগ থেকে পাঁচ বার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন ছায়েদুল হক। ২০১৪ সালে শেখ হাসিনার সরকারে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব পান প্রবীণ এই নেতা।

রবি