বিতর্কের মুখে কাকরাইলে নিজের অবস্থান স্পষ্ট করলেন মাওলানা সা’দ

সময়ের কণ্ঠস্বর- দিল্লির নিজামুদ্দিন মারকাজের মুরব্বি মাওলানা সা’দ কান্ধলভী কাকরাইল মারকাজ মসজিদে শুক্রবার (১২ জানুয়ারি) জুমার নামাজের আগে বয়ান করেছেন। বয়ান শুনতে আশপাশের অনেক মুসল্লি কাকরাইলে জমায়েত হয়েছিলেন।

মাওলানা সাদ কান্ধলবীর কাকরাইলে অবস্থান করা নিয়ে তাবলিগের একাংশ কাকরাইল মসজিদে অবস্থান করে এবং সেখানে জুমার নামাজের আগে তিনি বয়ান ও নামাজ শেষে দোয়া পরিচালনা করেন তিনি। এদিন ‘স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অনুমতি নিয়েই মাওলানা সা’দ কাকরাইলে বয়ান করছেন বলে জানিয়েছেন তাবলিগের সাথী মাওলানা ওসামা।

মাওলানা সা’দ উর্দুতে তার বয়ান পেশ করেন। এতে তিনি তার পূর্বে দেওয়া তার বক্তব্য থেকে সরে এসেছেন বলে জানান।

নিজের অবস্থান পরিষ্কার করে বয়ানে মাওলানা সা’দ বলেন, ‘কোনও সময় যদি আামাদের ওলামায় কেরাম কোনও কারণে ভুল ধরেন, আমরা মনে করবো, ওনারা আমাদের ওপর এহসান করেছেন, ওনারা আমাদের মোহসেন। ওলামায় কেরাম যে কথা বলবেন, তাতে আমাদের সংশোধন হবে ইনশাল্লাহ। এজন্য ওলামাদের কাছ থেকে আমরা লাভবান হবো। ওনারা কোনও ভুল ধরলে আমরা সংশোধন হবো। ’

তিনি আরো বলেন, ‘আমাদের কাজ হলো বয়ান করা। বয়ানে অনেক সময় ভুল হয়ে যায়। আমি সবার সামনে রুজু (বর্তমান অবস্থান থেকে সরে আসা) করেছি। কোনও কথায় যদি দোষ হয়, এটা থেকে আমি রুজু করতেছি, আগেও করেছি, এখনও করছি।’

‘ইজতেমায় যাবেন না মাওলানা সা’দ, সুবিধামতো সময়ে ভারতে ফিরে যাবেন’

সময়ের কণ্ঠস্বর- তাবলীগ জামাতের দুই অংশের নেতাদের নিয়ে বৈঠকের পর স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেছেন, তাবলীগ জামাতের মুরুব্বি মাওলানা মোহাম্মদ সাদ কান্দালভি বিশ্ব ইজতেমায় যাবেন না।

তিনি বলেন, ইজতেমা চলাকালে মাওলানা সাদ কাকরাইল মসজিদে অবস্থান করবেন এবং সুবিধা মতো সময়ে তিনি দেশে ফিরে যাবেন।

বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে তাবলিগ জামাতের বিবদমান দু’পক্ষ এবং দেশের জ্যেষ্ঠ কওমি আলেমদের সঙ্গে বৈঠক শেষে এ কথা জানান তিনি।

এর আগে বিকেল সাড়ে ৩টা থেকে সাড়ে ৫টা পর্যন্ত তাবলিগ জামাতের দুই পক্ষের মুরুব্বিদের সঙ্গে বৈঠক করেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। বৈঠক শেষে তিনি জানান, বিষয়টি নিয়ে তাবলিগ জামাতের দু’পক্ষের বিরোধ গত বছরও ছিল। এবার এটা তীব্র হয়েছে।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘দুই পক্ষের মধ্যে সমঝোতা হয়েছে। সাদ সাহেব তাঁর সুবিধামতো সময়ে কাকরাইল থেকে তাঁর দেশে চলে যাবেন। তিনি বিশ্ব ইজতেমায় যোগ দেবেন না। ভারতে যাওয়ার আগ পর্যন্ত তিনি কাকরাইল মসজিদেই অবস্থান করবেন।’

এ ছাড়া এবারের বিশ্ব ইজতেমার আখেরি মোনাজাত কে পরিচালনা করবেন সেটি তাবলিগের মুরুব্বিরাই ঠিক করবেন বলে জানান আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল।

উল্লেখ্য, মাওলানা সা’দ কান্ধলভীর ইজতেমায় অংশ নেয়াকে ঘিরে বুধবার থেকে চরম অচলাবস্থার সৃষ্টি হয়। তাকে প্রতিহত করতে তাবলীগ জামাতের একটি পক্ষ এবং কওমি মাদরাসার আলেম ও শিক্ষার্থীরা এদিন থেকে আন্দোলনে নামেন।

রবি