একইদিনে নতুন মাইলফলকে পৌছালেন তামিম-সাকিব

স্পোর্টস আপডেট ডেস্ক-

দেশের মাটিতে চলমান ত্রিদেশীয় সিরিজের তৃতীয় ম্যাচে শুক্রবার শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে নতুন মাইলফলকে পৌঁছেছেন বাংলাদেশের সর্বকালের সেরা ওপেনার তামিম ইকবাল এবং বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান।

এদিনের ৮৪ রানের ইনিংসের সুবাদে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের তিন সংস্করণ মিলিয়ে ১১ হাজার রানের মাইলফলকে পৌঁছেছেন তামিম। অন্যদিকে এদিনের ৬৭ রানের সুবাদে ১০ হাজারের মাইলফলকে পৌঁছেছেন সাকিব।

ঘরের মাঠে চলমান ত্রিদেশীয় সিরিজে পরপর দুই ম্যাচে দারুণ দুটি ইনিংস খেলেছেন ওপেনার তামিম ইকবাল। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে প্রথম ম্যাচে হার না মানা ৮৪ রান করেছিলেন। দ্বিতীয় ম্যাচেও একই সংগ্রহ গড়েছেন। তবে অল্পের জন্য সেঞ্চুরি হাতছাড়া করে হয়তো কিছুটা অক্ষেপই হয়েছে তাঁর। অবশ্য এই দিনে একটি দারুণ মাইলফলক গড়েছেন তিনি। তিন সংস্করণ মিলে তামিম আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ১১ হাজার করেন।

তামিমের এই রেকর্ডের দিনে বিশ্বের অন্যতম সেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান ছুঁয়েছেন ১০ হাজার রানের মাইলফলক। এদিন শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ম্যাচে সাকিব ৬৭ রান করে এই রেকর্ড নিজের ঝুলিতে নেন।

তামিমের মোট রান এখন ১১,০৭৭। যেখানে আছে ১৮টি সেঞ্চুরি ও ৬৮টি হাফসেঞ্চুরি। আর সাকিবের মোট রান ১০,০০১ রান। আর তিন ঘরানায় তাঁর সেঞ্চুরি ১২টি এবং হাফসেঞ্চুরি ৬৪টি।

তামিম এখন পর্যন্ত ৫২টি টেস্ট খেলে ৮ সেঞ্চুরি ২৪ হাফসেঞ্চুরিতে ৩৮৮৬ রান করেন। ১৭৬টি ওয়ানডতে ৯টি সেঞ্চুরি ও ৪০ হাফসেঞ্চুরিতে ৫৯৩৪রান এবং ৫৯টি টি-টোয়েন্টিতে ১২৫৭ রান করেন। বিশ ওভারের ক্রিকেটে তাঁর একটি সেঞ্চুরি ও চারটি হাফসেঞ্চুরি রয়েছে।

আর সাকিব ৫১টি টেস্ট খেলে ৫ সেঞ্চুরি ২২ হাফসেঞ্চুরিতে ৩৫৯৪ রান করেন। ১৮২টি ওয়ানডতে ৭টি সেঞ্চুরি ও ৩৬ হাফসেঞ্চুরিতে ৫১৮৪ রান এবং ৬১ টি-টোয়েন্টিতে ১২২৩ রান করেন। যাতে ছয়টি হাফসেঞ্চুরি রয়েছে।

দুজনই বন্ধু, খেলা শুরু করেছেন প্রায় একই সময়ে। হাত ধরাধরারি এগিয়ে নিচ্ছেন দেশের ক্রিকেটকে। সাফল্যও পাচ্ছেন দুজনে। এবার আরো একটি অর্জন জমা পড়ল তাদের ঝুলিতে।

চলমান এই সিরিজে নিজেদের প্রথম ম্যাচে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে তামিম অপরাজিত ৮৪ এবং সাকিব ৩৭ রান করেন।

Leave a Reply