সিরিয়ার কুর্দি-অঞ্চলে হামলা শুরু করেছে তুরস্কের সেনাবাহিনী

আন্তর্জাতিক ডেস্ক-

সিরিয়ার কুর্দি-অধ্যুষিত আফরিন অঞ্চলে হামলা শুরু করেছে তুরস্কের সেনাবাহিনী। স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার মধ্যরাত থেকে এ হামলা শুরু হয়েছে। তুরস্কের প্রতিরক্ষামন্ত্রী নুরুদ্দিন জানিকলি শুক্রবার এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। খবর রয়টার্সের।

তুর্কি প্রতিরক্ষামন্ত্রী বলেন, এখনও কোনো তুর্কি সেনা সেখানে প্রবেশ করেনি। এখন কেবল দূর থেকে কামানের গোলাবর্ষণ করা হচ্ছে। শিগগিরই সেখানে তুর্কি সেনাবাহিনী প্রবেশ করবে।

এদিকে আফরিনে হামলা শুরু হওয়ার পর সেখান থেকে রাশিয়া তাদের সৈন্যদের নিরাপদে সরিয়ে নিচ্ছে। সেনা সরিয়ে নেয়ার মাধ্যমে তুরস্কের হামলাকে রাশিয়া সমর্থন দিচ্ছে বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা।

কুর্দি গেরিলা গোষ্ঠী ওয়াইপিজি তুর্কি প্রতিরক্ষামন্ত্রীর বক্তব্যের সত্যতা স্বীকার করে জানাচ্ছে, তুরস্ক বৃহস্পতিবার মধ্যরাত থেকে কামানের গোলাবর্ষণ শুরু করেছে। কয়েকটি গ্রামে গোলা আঘাত হেনেছে। ওই হামলায় শুক্রবার ভোর পর্যন্ত প্রায় ৭০টি কামানের গোলা নিক্ষেপ করা হয়েছে।

এর আগে তুর্কি প্রেসিডেন্ট রেচেপ তায়েপ এরদোয়ান কুর্দি গেরিলাদের আত্মসমর্পণের আহ্বান জানিয়েছেন। তুরস্ক বলছে, সিরিয়ার কুর্দি গেরিলারা তুরস্কের জন্য ক্রমেই বড় ধরনের হুমকিতে পরিণত হচ্ছে।

এদিকে তুরস্কের আনাদোলু অ্যাজেন্সির খবরে বলা হয়েছে, পিকেকে সন্ত্রাসীরা ১৯৮০ সাল থেকে এ পর্যন্ত প্রায় ৪০ হাজার মানুষকে হত্যা করেছে। আফরিন এলাকায় বর্তমানে পিকেক’র ৮ থেকে ১০ হাজার সন্ত্রাসী অবস্থান করছে