এবার কুকুরের ‘ঘেউ ঘেউ’ ডাকের অর্থ অনুবাদ করবে যন্ত্র!

চিত্র- বিচিত্র ডেস্ক-
কুকুরের সাথে মানুষের সখ্যতা নতুন কিছু নয়। পোষ্য প্রাণী হিসেবেও কুকুরের জুড়ি নেই। তবে মানুষের সাথে কুকুরের এই সখ্যতার জায়গাটি এতোদিন ছিলো সাংকেতিক। আকার ইঙ্গিতে মানুষ কুকুরের ভাষা বোঝার চেষ্টা করতো।

কিন্তু এবার নাকি সরাসরি হবে কুকুরের সাথে যোগাযোগ। কুকুরের ঘেউ ঘেউ ডাকের অর্থ অনুবাদ করবে যন্ত্র! এমনটাই জানিয়েছেন গবেষকেরা ।

মানুষের ভাষায় বলে দেবে কুকুরের চাওয়া-পাওয়া। আনন্দ-বেদনার সব গল্প। সম্প্রতি এমন যন্ত্র আবিষ্কারের তথ্য দিয়েছেন নর্দার্ন অ্যারিজোনা বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষক কন স্লোবোডচিকফ।
স্লোবোডচিকফ জানিয়েছেন, বিষয়টি নিয়ে ৩০ বছর ধরে গবেষণা করছেন তিনি। দিনের পর দিন বিভিন্ন মেজাজে কুকুরের ভিন্ন ভিন্ন গলার স্বর নিয়ে নিরীক্ষা করেছেন তিনি।
মানুষ আর প্রাণীর মধ্যে বোধগম্য কোনো ভাষায় যোগাযোগে সহায়তা করতে আরও প্রযুক্তি আনার উদ্দেশ্যেই এই প্রতিষ্ঠান চালু করা হয়, বলা হয়েছে আইএএনএস-এর প্রতিবেদনে। স্লোবোডচিকফ-এর মতে, অন্যান্য শিকারিদের সতর্ক করতে প্রেইরি ডগ উচ্চ স্বরে ডাকে। এই ডাক শিকারির আকার ও ধরনের উপর ভিত্তি করে ভিন্ন হয়।

প্রেইরি ডগ মানুষের পরিধেয় কাপড়ের রঙও নির্দেশ করতে পারে। স্লোবোডচিকফ বলেছেন, “আমি মনে করি, যদি আমরা প্রেইরি ডগ-এর সঙ্গে এটি করতে পারি, আমরা নিশ্চিতভাবে কুকুর আর বিড়ালের সঙ্গেও তা করতে পারি।” তিনি ও তার দল কুকুরের ঘেউ ঘেউ আর শরীরের নড়াচড়া বিশ্লেষণায় হাজার হাজার ভিডিও দেখছেন।

তার দাবি, তিনি কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তাসম্পন্ন এমন এক অনুবাদ যন্ত্র আবিষ্কার করতে যাচ্ছেন যেটি কুকুরের সব আলাদা আলাদা ডাকের তথ্য নিয়ে বের করে ফেলবে কুকুরের কোন ডাকের কি অর্থ।

আপাতত বিষয়টি নিয়ে গবেষণায় মত্ত স্লোবোডচিকফ। এখন অপেক্ষার পালা। কবে তিনি সুখবর দেন। কোন সন্দেহ নেই, যদি সত্যিই তিনি সফল হন তা হলে এটি হবে এক যুগান্তকারী আবিষ্কার।