ঘরে স্ত্রী ও দেড় বছরের শিশুকন্যার ঝুলন্ত লাশ! শ্যালিকাকে নিয়ে নিরুদ্দেশ স্বামী!

সময়ের কণ্ঠস্বর, ঢাকা-
রাজধানীর সবুজবাগ আহমেদবাগ এলাকার একটি টিনসেড বাসা থেকে স্ত্রীকন্যার ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে সবুজবাগ থানা পুলিশ। নিহতরা হলেন-শান্তনা (২৫) ও তার মেয়ে মাহফুজা (২)। মঙ্গলবার সকালে পুলিশ তাদের লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে।
প্রাথমিক তদন্তের বরাতে পুলিশ জানিয়েছে স্বামীর সাথে ছোট বোনের পরকিয়ার সম্পর্ক ধরে এই আত্মহত্যা বা মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে। ।

মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে আহমেদবাগ কমিউনিটি সেন্টারে পাশের একটি বাসা থেকে তাদের লাশ উদ্ধার করা হয়। পরে ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ মর্গে পাঠানো হয়।
সবুজবাগ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মোস্তাফিজুর রহমান জানান, স্থানীয়দের কাছে খবর পেয়ে মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে পুলিশ আহমদবাগ মায়াকানন পানির পাম্পের পাশে ওই টিনশেড বাড়িতে যায় । দরজা ভেঙে ঘরে ঢোকার পর সান্ত্বনা আক্তার নামে ২৫ বছর বয়সী ওই নারী এবং তার মেয়ে মাহফুজার লাশ দেখতে পায় পুলিশ।

পরিদর্শক আরও বলেন, ঘরের দরজা ভেতর থেকে আটকানো ছিল। সান্ত্বনার লাশ ঘরের সিলিং ফ্যান থেকে ঝুলছিল। আর তার মেয়েকে মৃত অবস্থায় বিছানায় পাওয়া গেছে। শান্তনার স্বামী মামুন স্থানীয় একটি ইন্টারনেট সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানের লাইনম্যান হিসেবে কাজ করে। স্থানীয়দের সূত্র ধরে পরিদর্শক মোস্তাফিজ আরও বলেন, ‘দুই দিন আগে মামুন তার শ্যালিকাকে নিয়ে পালিয়ে গেছে। এটা নিয়ে পারিবারিক সমস্যা ছিল। এসব কারণেই হয়ত শিশুটিকে খুন করে নিজে আত্মহত্যা করেছেন এই নারী।

সবুজবাগ থানার উপ পরিদর্শক (এসআই) রহমত উল্লাহ জানান, খবর পেয়ে ওই বাসা থেকে আড়ার সঙ্গে ওড়না দিয়ে গলায় ফাঁস লাগানো ঝুলন্ত অবস্থায় মা-মেয়ের লাশ উদ্ধার করা হয়। ধারণা করা হচ্ছে, মেয়ের গলায় ফাঁস আটকিয়ে পরে মা নিজেও গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করেছে।
এসআই রহমত উল্লাহ আরও জানান, মৃত শান্তনার স্বামী ঘটনার দুইদিন আগে থেকে নিখোঁজ রয়েছে। লোকমুখে শুনতে পেরেছি, তার স্বামী শ্যালিকাকে নিয়ে পালিয়ে গেছে। বিস্তারিত তদন্ত করে দেখা হচ্ছে বলে জানান তিনি।

Leave a Reply