রোববার রাতে হবিগঞ্জে গনধর্ষণের শিকার এক নারী, সোমবার সকালে আক্কেলপুরে গনধর্ষণের শিকার এক স্কুলছাত্রী

সময়ের কণ্ঠস্বর ডেস্ক-
সোমবার সকালে জয়পুরহাটের আক্কেলপুরে দশম শ্রেণির এক ছাত্রীকে তুলে নিয়ে দলবেঁধে ধর্ষণ করা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। উপজেলার ইসমাইলপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। অন্যদিকে হবিগঞ্জে এক পোশাক শ্রমিককে দলবেঁধে গণধর্ষনের ঘটনা ঘটেছে রবিবার ।

জয়পুরহাটের আক্কেলপুরে ঘটনার শিকার ওই ছাত্রীকে উদ্ধার করে সদর হাসপাতালে ভর্তি করেছেন স্থানীয়রা।

স্থানীয়রা জানান, সকালে বাড়ি থেকে কোচিং এ যাওয়ার পথে কয়েকজন যুবক মুখ বেঁধে তাকে তুলে নিয়ে যায়। পরে গ্রামের একটি জঙ্গলে নিয়ে পালাক্রমে ধর্ষণের পর তাকে ফেলে রেখে যায়।

মেয়েটির গোঙানির শব্দে পাশ দিয়ে যাওয়া গ্রামবাসী তাকে উদ্ধার করে জেলা আধুনিক হাসপাতালে নিয়ে যান।

হাসপাতালের চিকিৎসক ডা. মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, ‘প্রাথমিকভাবে ধর্ষণের আলামত পাওয়া গেছে। পরীক্ষা-নিরীক্ষা শেষে এ বিষয়ে আরও বিস্তারিত জানা যাবে।’

আক্কেলপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সিরাজুল ইসলাম বলেন, ‘এ ব্যাপারে শুনেছি । মেয়েটি কিছুটা সুস্থ হলে তার মুখে বিস্তারিত শুনে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এদিকে, হবিগঞ্জ উপজেলার নোয়াপাড়া এলাকায় এক পোশাক শ্রমিককে দলবেঁধে গণধর্ষনের অভিযোগ উঠেছে । রোববার রাত ৮টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। ওই নারী শ্রমিক ওই এলাকায় একটি পোশাক কারখানায় কাজ করেন। স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য সোমবার সকালে তাকে হবিগঞ্জ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

হাসপাতালের আবাসিক অফিসার ডা.রাজিব চৌধুরী বলেন, তিনি ধর্ষণের শিকার হয়েছেন কি না তা পরীক্ষা করেই নিশ্চিত হওয়া যাবে। বর্তমানে তাকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

ওই নারী শ্রমিক সাংবাদিকদের বলেন, রোববার রাত ৮টার দিকে তিনি কারখানা থেকে বাড়ি ফিরছিলেন। এসময় কয়েকজন ব্যক্তি তার পথরোধ করে গামছা দিয়ে তার চোখ ও মুখ বেঁধে ফেলে। পরে পাশের একটি পরিত্যক্ত বাড়িতে নিয়ে গিয়ে তারা তাকে দলবেঁধে ধর্ষণ করে। ভোরের দিকে তারা চলে যায়।

পরে বাড়ি গিয়ে পরিবারের সদস্যদের জানালে তারা তাকে হাসপাতালে নিয়ে যায় বলে ওই নারী জানান।

মাধবপুর থানার ওসি চন্দন কুমার চক্রবর্তী বলেন, এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত থানায় কেউ অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।