নাগরিকত্ব পাচ্ছেন লুসি হল্ট

বরিশাল প্রতিনিধি- মহান মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন সময় থেকে মানবসেবায় বিশেষ অবদান রাখার জন্য বরিশালের অক্সফোর্ড মিশনে অবস্থানরত বৃটিশ নাগরিক লুসি হেলেন ফ্রান্সিস হল্টকে নাগরিকত্ব দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার।

সোমবার দুপুরে বরিশাল জেলা প্রশাসক মো. হাবিবুর রহমান লুসি হল্টকে নাগরিকত্ব প্রদানের বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

এ সময় জেলা প্রশাসক জানান, সচিবলায়ে বাংলাদেশের নাগরিকত্ববিষয়ক আন্তঃমন্ত্রণালয় সংক্রান্ত পরামর্শক কমিটির বৈঠকে লুসিকে বাংলাদেশের নাগরিকত্ব দেবার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। লুসি হেলেন ফ্রান্সিস হল্টকে বাংলাদেশের নাগরিকত্ব দেয়ার সিদ্ধান্তের কারণে খুব শিগ্রই নাগরিকত্বের কাগজপত্র হাতে পেতে যাচ্ছেন বলে তিনি জানান।

এদিকে নাগরিকত্ব দেয়ার সিদ্ধান্তের বিষয়ে লুসি হল্ট আপ্লুত কন্ঠে বলেন, ‘আমি খুবই খুশি। বিষয়টা আমার কাছে স্বপ্নের মত মনে হচ্ছে। আমার শেষ ইচ্ছা এই দেশের মাটিতেই যেন আমার মৃত্যু হয়। এই সরকার আমার সকল দাবি পূরণ করেছে। এই জন্য আমি সরকারের নিকট কৃতজ্ঞ।’

এর আগে গত ৮ ফেব্রুয়ারি বরিশালের ঐতিহাসিক বঙ্গবন্ধু উদ্যানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাত থেকে ১৫ বছরের জন্য ভিসা ফি মুক্ত মাল্টিপল পাসপোর্ট গ্রহণ করেন ব্রিটিশ নাগরিক লুসি হেলেন ফ্রান্সিস হল্ট। এসময় তাকে স্থায়ীভাবে বাংলাদেশের নাগরিকত্ব দেয়া যায় কিনা সে বিষয়টি বিবেচনা করা হবে বলে আশ্বস্ত করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী।

প্রসঙ্গতঃ ১৯৩০ সালের ১৬ ডিসেম্বর ইংল্যান্ডের সেন্ট হ্যালেন্স শহরে জন্মগ্রহণ করেন লুসি। ১৯৬০ সালে বরিশালের অক্সফোর্ড মিশন হাসপাতালে সেবিকা হিসেবে যোগদান করেন তিনি। অক্সফোর্ড মিশন স্কুলে বিনা বেতনে তিনি পাঠদান করাতেন। ১৯৭১ সালে যুদ্ধের সময় যশোর ক্যাথলিক চার্চে তিনে কর্মরত ছিলেন। যুদ্ধের সময় চার্চটি বন্ধ করে দেয়ায় জীবনবাজি রেখে নিকটবর্তী ফাতেমা হাসপাতালে যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধাদের দেখভাল করেছিলেন। এছাড়াও তিনি যশোর, খুলনা, নওগাঁ, ঢাকা ও গোপালগঞ্জের আর্থিক অস্বচ্ছল ও দুঃস্থদের পাঠদান ও সেবা করেছেন।

লুসির বর্তমান বয়স ৮৮ বছর। তার পরিবারের অন্যান্য সদস্যরা ব্রিটেনে বসবাস করেন। তবে তিনি আমৃত্যু বাংলাদেশে থাকার ইচ্ছা পোষণ করেছেন।

সময়ের কণ্ঠস্বর/রবি