ফরিদপুরে শরীরে আগুন দিয়ে জার্মান প্রবাসীর স্ত্রীর মৃত্যু

হারুন-অর-রশীদ, ফরিদপুর প্রতিনিধি-  ফরিদপুরের সালথায় পরকীয়ার জের ধরে শরীরে আগুন দিয়ে মিতা আক্তার (২৭) নামে এক জার্মান প্রবাসীর স্ত্রীর মৃত্যু হয়েছে।

মঙ্গলবার রাতে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যায়। মিতা উপজেলার ভাওয়াল ইউনিয়নের ইউসুফদিয়া ভদ্রপাড়া গ্রামের জার্মান প্রবাসী আবু সাঈদ এর স্ত্রী।

স্থানীয়ভাবে জানা যায়, পরকীয়ার জের ধরে জার্মান প্রবাসী স্বামী আবু সাঈদ এর সাথে মিতার একাধিকবার ফোনে কথা কাটাকাটির ঘটনা ঘটেছে। এরই সূত্র ধরে স্বামীর সাথে অভিমান করে সোমবার রাতে ঘরের দরজা বন্ধ করে মিতা আক্তার তার শরীরে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয় । শরীর আগুন লাগার পর নিজেকে বাঁচানোর জন্য চিৎকার দেয়। তার চিৎকারে বাড়ির লোকজন ছুঁটে এসে ঘরের দরজা ভেঙ্গে মিতার শরীরের আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

এরপর তাকে দ্রুত ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসকরা তার অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করেন। মঙ্গলবার রাতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মিতার মৃত্যু হয়েছে বলে জানা গেছে । মিতার পরকীয়ার বিষয়টি এলাকায় চাউর আছে। মিতা আক্তারের গর্ভের সামিরা আক্তার (১৩) ও সায়মা আক্তার (১০) নামে দুটি কন্যা সন্তান রয়েছে বলে শাশুড়ি মমতাজ বেগম সাংবাদিকদের জানিয়েছেন।

এলাকার অনেকের ভাষ্য, মিতা আক্তার পরকীয়ায় জড়িত। আর এ কারণে প্রবাসী স্বামীর সাথে তার প্রায়ই ফোনের মাধ্যমে ঝগড়া হতো। কার সাথে তার পরকীয়া এ ব্যাপারে এলাকার কেউ মুখ খুলেনি।

সালথা থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ দেলোয়ার হোসেন খাঁন বলেন, প্রবাসীর স্ত্রীর মৃত্যুর সংবাদ পেয়েছি। অভিযোগ পেলে তদন্ত পুর্বক আইনগতভাবে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

সময়ের কণ্ঠস্বর/রবি

Leave a Reply