SOMOYERKONTHOSOR

নির্বাচনে সকল দল অংশগ্রহন করবে এটা আমাদের প্রত্যাশা:বাণিজ্যমন্ত্রী

ভোলা প্রতিনিধি: বিএনপি নেতা মওদুদ আহমেদের বক্তব্যের সমালোচনা করে বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেছেন, খালেদা জিয়া জেলে থাকলে যদি বিএনপি’র জনপ্রিয়তা বাড়ে তাহলে তাকে জেলে রেখেই নির্বাচনে আসুন। জেলে থাকলে যদি জনপ্রিয়তা বাড়ে আর আওয়ামী লীগের ভোট কমে, তাহলে তাকে জেলেই রেখে দিন।

একজন শিক্ষিত লোকের এমন কথা মানায় না। আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন হবে অংশগ্রহনমূলক। সে নির্বাচনে সকলের অংশগ্রহন করবে, যারা করবে না তারা ক্ষতিগ্রস্থ হবে। শনিবার (২৪ ফেব্রুয়ারী) দুপুরে ন্যাশনাল সার্ভিসের কর্মসূচীর প্রশিক্ষণপ্রাপ্তদের সনদ বিতরন, জাটকা সংরক্ষন সপ্তাহের উদ্বোধন এবং প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকদের মাঝে ল্যাপটপ বিতরনকালে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

বানিজ্যমন্ত্রী বলেন, ২০১৮ সালে ডিসেম্বরে সংবিধান অনুসারে বর্তমান ক্ষমতাসীন দলের অধীনে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। সকল দল এই নির্বাচনে অংশগ্রহন করুন এটাই আমাদের প্রত্যাশা এবং এ নির্বাচন হবে অবাদ, সুষ্ঠ এবং নিরপেক্ষ।

বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ আরো বলেছেন, বেকার সমস্যা সমাধানের জন্য ন্যাশনাল সার্ভিস কর্মসূচী চালু করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি স্বপ্ন দেখেন তিনি দেশের জন্য জীবন উৎসর্গ করেছেণ।

কিন্তু বিএনপি ২০০৪ সালে ২১ আগষ্ঠ গ্রেনেড হামলা প্রধানমন্ত্রীকে হত্যার করার চেষ্ঠা করেছিলো, ২০০৫ সালের ১৭ আগস্ট চালিয়ে সকল জেলায় বোমা মেরে ছিলো, গাছের সাথে লটকিয়ে মানুষের উপর নির্মম নির্যাতন করেছিলোু আবদুর রহমান বাংলা ভাইরা। দেশের জঙ্গি তৎপরাতা নির্মূল করেছি।

তিনি আরোও বলেন, বাংলাদেশ উজ্জল সম্ভাবনার দেশ, এক সময় এ দেশেকে তলাবিহীন ঝুলি বলা হতো, এখণ তারাই বলে বাংলাদেশ বিশ্বয়কর উত্থান। সকল দিক থেকে আজকে বাংলাদেশের পেছনে পাকিস্তান। তাদের থেকে রপ্তানি, রিজার্ভ এবং রেভিটেন্স এবং বিদ্যৎ উৎপাদন অনেক বেশি।

এখণ আমরা স্বপ্ল উন্নত দেশ হলেও অচিরেই উন্নতশীল দেশে রুপান্তিত হতে চলেছি। যখন দেশের জনসংখ্য সাড়ে সাত কোটি ছিলো তখন খাদ্যের অভাব ছিলো কিন্তু এখণ ১৬ কোটির বেশী হলেও খাদ্য উদ্বৃত।

তিনি আরো বলেন, বিএনপি’র আমলে ভোলায় কোন উন্নয়ন হয়নি, আমারা নদী ভাঙ্গা বন্ধু করেছি, ঘরে ঘরে বিদ্যু পৌছে দিয়েছি, এবং নির্বাচনের আগেই ভোলা-বরিশাল ব্রীজ নির্মানের কাজ শুরু হবে। গ্রামীন অবকাঠামোর কাজ চলছে। ভোলায় অনেক শিল্প প্রতিষ্ঠান হবে এবং দেশের মধ্যে মডেল জেলা পরিনত হবে। ইতমধ্যে জেলার গ্রামগুলো শহরে পরিনত হয়েছে।

সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মৃধা মোজাহিদুল ইসলামের সভাপতিত্ব বিশেষ অতিথি’র বক্তব্য রাখেন, জেলা প্রশাসক মো: সেলিম উদ্দিন, উপজলো পরিষদের চেয়ারম্যান মোশারেফ হোসেন, ভাইস চেয়ারম্যান মো: ইউনুস এবং উপস্থিত ছিলেন, জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মইনুল হোসেন বিপ্লব।
অনুষ্ঠানে শেষে বাণিজ্যমন্ত্রী সেতু মন্ত্রনালয়ের সচিবসহ কর্মকর্তাদের নিয়ে ভোলা বরিশাল সেতুর স্থান পরিদর্শন করেন।