অকালে চুল পাকা রোধে ৬ খাবার

লাইফস্টাইল ডেস্ক- চুলের অকালপক্কতার সমস্যা এখন ঘরে ঘরে। খাদ্যাভ্যাস, শারীরিক পরিশ্রমের অভাব, খাবারে নানা কেমিকেলের উপস্থিতি, পর্যপ্ত ভিটামিন ও মিনারেল সমৃদ্ধ খাবার না খাওয়া, দুঃশ্চিন্তা, হরমোনের ভারসাম্যহীনতাসহ নানা কারণে অল্প বয়সেই পাক ধরতে পারে চুলে।

আর তরুণ বয়সে চুল পাকা বেশ বিব্রতকর ব্যাপারই বটে। যদিও সাময়িক সমাধান হিসেবে অনেকে চুলে কলপ ব্যবহার করে থাকেন। তবে এতে চুল একেবারে কালো হয় না। তার পাশাপাশি কলপের উপাদান নিম্নমানের হলে তা মাথার চামড়ার ক্ষতি করতে পারে। অ্যালার্জি সৃষ্টি করতে পারে।

অনেকেরই হয়তো জিনগত কারণে হয়ে থাকে বা অতিরিক্ত চিন্তার কারণেও এমনটা হয়। কিন্তু এসব সমস্যা ছাড়াও আরও একটি গুরুত্বপূর্ণ সমস্যা হচ্ছে শরীরে পুষ্টির অভাব।

তাই এ বিষয়ে অবশ্যই সচেতন হতে হবে। নিয়মিত খাদ্যের তালিকায় কিছু পুষ্টিকর খাবার রাখতে হবে যা আমাদের শরীরের পুষ্টির অভাবগুলো দূর করে পাকা চুল রোধ করবে। এর পাশাপাশি চুল গজাতেও সাহায্য করবে।

পাকা চুল রোধ করতে পারে এমন ৬ ধরনের খাবারের কথা একুশে টিভি অনলাইন পাঠকদের উদ্দেশে তুলে ধরা হলো।

১) আখরোট : আখরোটে থাকে প্রচুর পরিমাণ কপার বা তামা। এই তামাই চুলে মেলানিন উৎপন্ন করে, যে কারণে চুলকে কালো রাখতে সাহায্য করে।

২) সামুদ্রিক মাছ : সামুদ্রিক মাছগুলোতে প্রচুর পরিমাণে ওমেগা ৩টি ফ্যাটি এসিড রয়েছে যা পাকা চুল রোধ করতে সাহায্য করে। এছাড়া সামুদ্রিক মাছগুলোতে রয়েছে অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট যা দেহের প্রয়োজনীয় হরমোন তৈরিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে।

৩) ব্রকোলি : চুলে পাকা আটকাতে শরীরে প্রয়োজন পরিমিত পরিমাণ ফোলিক অ্যাসিড যা প্রচুর অনুপাতে পাওয়া যায় ব্রকোলিতে।

৪) বেরি জাতীয় ফল : ব্লু বেরি, স্ট্রবেরি, চেরি ইত্যাদিতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি যা মাথার চামড়ায় রক্ত সঞ্চালন বাড়িয়ে তোলে। ফলে তাজা রক্ত পৌঁছতে পারে চুলের গোড়ায় যা চুলকে কালো রাখতে সাহায্য করে।

৫) চকলেট ও কাঠবাদাম : চিনি বিহীন কিংবা স্বল্প চিনিযুক্ত চকলেটে আছে প্রচুর পরিমাণে কপার যা মেলানিন তৈরিতে সহায়ক। এই মেলানিনই আমাদের চুলের রঙ কালো করার ভূমিকা পালন করে। এছাড়া কাঠবাদামেও আছে প্রচুর কপার যা মেলানিনের পরিমাণ ঠিক রাখে।

৬) কাবলি ছোলা : কাবলি ছোলা ভিটামিন বি সমৃদ্ধ একটি খাবার। রোজ না হলেও সপ্তাহে দু’তিনদিন খেলেও উপকার হবে।

সময়ের কণ্ঠস্বর/রবি

Leave a Reply