'বাংলাদেশ অনেক ভাল খেলছে, এটাই চিন্তার কারণ ভারতের'

স্পোর্টস ডেস্কঃঅপেক্ষাটা এবার স্বপ্ন পূরণের। একই সঙ্গে ভারতের বিপক্ষে গেল ওয়ার্ল্ড টি-২০'র ম্যাচে হারের ক্ষত শুকানোরও। এ সবই পূর্ণতা পাবে যদি ভারতের বিপক্ষে জয়টা ছিনিয়ে আনা যায়। এ জন্য পুরোপুরি চাপমুক্ত হয়ে শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত ভালো খেলতে চায় সাকিব বাহিনী। অন্যদিকে, বাংলাদেশের সাম্প্রতিক পারফরমেন্সকে সমীহ করলেও জয় ভিন্ন কিছুই ভাবছে না টিম ইন্ডিয়া। কলম্বোর প্রেমাদাসায় ম্যাচটি শুরু হবে রোববার সন্ধ্যা সাড়ে সাতটায়।

অনুশীলন হলেও ব্যাট নেটে নেমে পড়লেন সাকিব। অধিনায়কের সঙ্গী হয়ে ঘন্টাখানেক ব্যাটে বলে অনুশীলন করেছেন আরিফুল, সোহানরাও। বোলিংয়ে ঘাম ঝরিয়েছেন রাহির, রনিরাও। ফাইনাল যে টাইগারদের জন্য শোকগাঁথা। তবে এবার বদলাবে ইতিহাস। সাকিবের ঠিলেঠালা কথার মাঝেও এই প্রত্যয়টা স্পষ্ট।

সাকিব বলেন, 'শুরুটা খুবই জরুরিভাবে আমার কাছে মনে হয় ম্যাচের এবং ওই সময়টাকে ধরে রাখতে পারাটাও জরুরি। একটি বলের সঙ্গে একটি ব্যাটের মিশ্রণ হবে। যেটা ভাল করবে তারাই জিতবে। অবশ্যই চেষ্টা থাকবে জেতার জন্য যা কিছু করার তাই করবো।'

ক্রিকেটের সংক্ষিপ্ত ফরম্যাটে ভারতের বিপক্ষে সুখ স্মৃতি নেই। সাত ম্যাচে প্রাপ্তির খাতাটাই শূন্য। নিদাহাস ট্রফিতে দুই দেখায় খর্ব শক্তির ভারতের সামনে পথ হারায় বাংলাদেশ। তবে কোন স্নায়ু চাপ নয়। ফাইনালে স্বাভাবিক খেলাটাই উপহার দিতে চায় সাকিব বাহিনী।

সাকিব আরো বলেন, 'টি টোয়েন্টি ম্যাচে ভাল করার জন্য ফ্রি থাকাটা খুবই জরুরি। এবং বাড়তি প্রেসার থেকে ফ্রি থাকাটা খুবই জরুরি। আশা করি সবাই কোনো রকমের চাপ নেবে না। শুধুমাত্র খেলাতেই মনোযোগ দেবে।'

অন্যদিকে সকাল থেকেই নিবিড় অনুশীলন করছে ভারত। নেটে দীর্ঘসময় ব্যাটিং করেছে রোহিত ধাওয়ানরা। ফাইনালের একাদশে আসতে পারে এক পরিবর্তন । আবারো ফিরতে পারেন উনাথকাত। সহজে ছেড়ে দেবেনা বাংলাদেশও। জানা আছে টিম ইন্ডিয়ার।

ভারতের খেলোয়াড় দিনেশ কার্তিক বলেন, 'সাম্প্রতিক সময়ে বাংলাদেশ অনেক ভাল খেলছে। এটা আমাদের চিন্তার কারণ। কিন্তু আমরা আমাদের খেলার দিকে খেয়াল দিতে চাই। দিন শেষে লক্ষ্য একটাই তা হল ফাইনাল জেতা।'

বাংলাদেশ দলেও পরিবর্তনের আভাস মিলেছে। ম্যাচ হোক রোমাঞ্চ ছড়ানো কিন্তু প্রেমাদাসায় ট্রফি হাতে সাপ নৃত্য দিতে তড় সইছে না বাংলাদেশ দলের।

নেটে রোহিত শর্মা, শিখর ধাওয়ান, লোকেশ রাহুলদের একটানা ব্যাটিং। তদের এই টপ বোর্ডের উপরে যে অনেকটাই নির্ভরতা। অন্যপাশে একটানা বোলিং করছেন চাহাল ওয়াশিংটন সুন্দররাও। তাদের এই অখণ্ড মনোযোগের আরেকটি কারণ থাকতে পারে। শ্রীলংকার বিপক্ষে বাংলাদেশ যেভাবে জিতেছে তা একটি সতর্ক বার্তাও।

সময়ের কণ্ঠস্বর/ফয়সাল