সাকিবকে ফাইনাল ম্যাচে বহিষ্কার করার জন্য শ্রীলঙ্কার আবেদন!

স্পোর্টস আপডেট ডেস্ক- এই হারের ক্ষত মুছতে শ্রীলঙ্কানদের যে কয়দিন লাগবে, সেটি ক্রিকেট বিধাতাই জানেন! শুক্রবার নিদাহাস ট্রফির ফাইনালের আগের শেষ ম্যাচটি জটিল হিসেবনিকেশের কারণে পায় ফাইনাল নির্ধারণী ম্যাচের মর্যাদা। টানটান উত্তেজনাপূর্ণ ঐ ম্যাচে শ্রীলঙ্কাকে ২ উইকেটে হারিয়ে ফাইনালে জায়গা করে নেয় বাংলাদেশ।

এই পরাজয় যেন কিছুতেই মেনে নিতে পারছে না আসরের আয়োজক দ্বীপ দেশটি। দৃষ্টিকটুভাবেই দেশটির গণমাধ্যম থেকে ক্রিকেট বোর্ড- সব ক্ষেত্র এবার উঠেপড়ে লেগেছে টাইগারদের পেছনে। এমনকি বাংলাদেশ অধিনায়ক সাকিব আল হাসানকে ফাইনালে সাসপেন্ড করার জন্য আবেদনও জানিয়েছে তারা।

‘নো’ বল ইস্যুতে কলম্বোতে বাংলাদেশ ও শ্রীলঙ্কার মধ্যকার ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনাল নির্ধারণী ম্যাচের শেষ ওভারে দু’দলের খেলোয়াড়দের মাঝে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। ইসুরু উদানার প্রথম দুই বল বাউন্সার হওয়ার পর টি-টোয়েন্টির নিয়ম অনুযায়ী আম্পায়ারের ‘নো’ বল কল করার কথা।

ম্যাচ জেতানোর নায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ লেগ-আম্পায়ারের দৃষ্টি আকর্ষণ করলে তিনি ‘নো’ বলের ইঙ্গিত দেন। কিন্তু শ্রীলঙ্কান ক্রিকেটারদের প্রতিবাদের পর মূল আম্পায়ারের সাথে আলোচনা করে তা তুলে নেন। এ নিয়েই যত বিপত্তি। প্রথম বলটি আম্পায়ার বাউন্সার ডেকেছিলেন কিনা তা নিশ্চিত নয়। প্রতিবাদী হয়ে ওঠেন মাহমুদউল্লাহ। মাঠের বাইরে বাংলাদেশের ড্রেসিংরুম ক্ষোভে ফেটে পড়ে। অধিনায়ক সাকিব ক্রিজের দুই ব্যাটসম্যান রিয়াদ ও রবেলকে মাঠ থেকে চলে আসতে ইশারা করেন। সব মিলিয়ে হ-য-ব-র-ল অবস্থা।

শেষ পর্যন্ত উত্তেজনাকর পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়। দলকে অবিস্মরণীয় জয় উপহার দেন মাহমুদউল্লাহ। প্রথম দুই বল ডট হওয়ার পর ৪ বলে দরকার ছিল ১২। শেষ দুই বলে ছক্কা হাঁকিয়ে ১ বল হাতে রেখে দলকে নিয়ে যান ফাইনালের মঞ্চে। খেলেন ১৮ বলে ৪৩ রানের বিস্ফোরক এক ইনিংস।

ম্যাচের শেষ ওভারে যে উত্তাপ ছড়িয়েছিল তা হয়তো তখনি মিটমাট হয়ে গিয়েছিল। কিন্তু এর রেশ রয়ে গেছে এখনো। ম্যাচের ওই মুহূর্তে ক্রিজে থাকা ক্রিকেটারদের মাঠ ত্যাগ করার ইঙ্গিত দেওয়াতে নিষেধাজ্ঞার একটা হুমকি ছিল। স্বস্তির খবর, তেমনটা হয়নি। আম্পায়ারের ভুল থেকে ঘটনার উৎপত্তি হওয়ার বিষয়টি বুঝতে পেরেছেন ম্যাচ রেফারি ক্রিস ব্রড।

তবে ওই ঘটনায় সাকিবকে ম্যাচ ফি’র ২৫ শতাংশ জরিমানা করেছেন ম্যাচ রেফারি ক্রিস ব্রড। আর জরিমানার সঙ্গে একটি ডিমেরিট পয়েন্ট দেওয়া হয়েছে। একাদশের বাইরে থাকা নুরুল হাসান সোহান উত্তেজনার মুহূর্তটিতে লঙ্কান ক্রিকেটারদের সঙ্গে বাকবিতণ্ডায় জড়িয়ে পড়ায় তার ওপরও আরোপ করা হয়েছে ম্যাচ ফি’র ২৫ শতাংশ জরিমানা ও ১টি ডিমেরিট পয়েন্ট।

কিন্তু শ্রীলঙ্কান দল এই শাস্তিতে খুশি নয় বলে জানা গেছে। দেশটির ক্রিকেট বোর্ড লিখিতভাবে ক্রিকেটের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থা আইসিসিকে সিদ্ধান্তটি পুনর্বিবেচনার আবেদন করেছে।

একটি সূত্র জানিয়েছে, ‘শ্রীলঙ্কার ক্রিকেট বোর্ড ড্রেসিং রুমের কাচ ভাঙা নিয়ে বাংলাদেশের ক্রিকেটারদের দিকে অভিযোগের আঙুল তুলেছে। তাদের চাওয়া, শাস্তি বাড়িয়ে সাকিবকে যেন অন্তত ভারতের বিপক্ষে ফাইনালে সাসপেন্ড করা হয়।’ তবে এ বিষয়ে এখনও কোনও সিদ্ধান্ত হয়নি বলেও সূত্রটি জানায়।

প্রাথমিকভাবে জানা গেছে, ড্রেসিং রুমের মধ্যে থাকা কোনও বাংলাদেশি খেলোয়াড় ভেঙেছেন দরজার কাচ। বাইরের দিকে মুখ করে থাকা সিসি ক্যামেরায় ধরা পড়েছে বাংলাদেশ দলের বেশ কয়েকজন খেলোয়াড় দৌড়ে বেরিয়ে যাচ্ছেন ড্রেসিং রুম থেকে। ধারণা করা হচ্ছে, ওই মুহূর্তেই ভেঙেছে দরজার কাচ। তবে বাংলাদেশের খেলোয়াড়রা যে ইচ্ছে করে দরজা ভাঙেননি, সেটা অবশ্য উঠে এসেছে প্রাথমিক অনুসন্ধানে।

এদিকে সাকিব-সোহানের জরিমানা প্রসঙ্গে ম্যাচ রেফারি ক্রিস ব্রোড বলেছেন, ‘তাদের এ আচরণ ক্রিকেটের সঙ্গে যায় না। আমিও জানি সিরিজের ফাইনালে ওঠার এটা গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচ, যে কারণে উত্তেজনাও বেশি। কিন্তু মাঠের দুই ক্রিকেটার স্বাভাবিক ছিল।’

তিনি আরও বলেন, ‘ম্যাচ রেফারি যদিও খেলা বন্ধ করতে বলেননি। কিন্তু সাকিব ম্যাচ বন্ধ করে দিয়ে চলে আসতে ক্রিকেটারদের নির্দেশ দিয়েছেন। তাছাড়া থিসেরা পেরেরার সঙ্গে অযাচিত বাগবিতণ্ডায় জড়িয়ে পড়েছেন নূরুল হাসান সোহান। তার এটা মোটেও ঠিক হয়নি। যে কারণে তাদের জরিমানা করা হচ্ছে।’

সময়ের কণ্ঠস্বর/রবি