চাঁপাইনবাবগঞ্জে অন্ধ নারী ধর্ষণ মামলায় একজনের যাবজ্জীবন

জাকির হোসেন পিংকু, চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি:চাঁপাইনবাবগঞ্জে একজন বিবাহিত দৃষ্টি প্রতিবন্ধী (অন্ধ) নারীকে জোরপূর্বক ধর্ষণের অভিযোগে নারী ও শিশু নির্য়াতন দমন আইনে দায়েরকৃত একটি মামলার একমাত্র আসামীকে যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদন্ড দিয়েছেন আদালত।

এছাড়া তাঁকে ১ লক্ষ টাকা অর্থদন্ড অনাদায়ে তিন বছর বিনাশ্রম কারাদন্ডের আদেশ দেয়া হয়েছে। অর্থদন্ডের টাকা ধর্ষিতা প্রাপ্য হবেন। রোববার বেলা সোয়া ১১টায় চাঁপাইনবাবগঞ্জ নারী ও শিশু নির্য়াতন দমন ট্রাইবুনাল-২ এর বিচারক ও অতিরিক্ত দায়রা জজ জিয়াউর রহমান আসামীর উপস্থিতিতে এই রায় ঘোষণা করেন। দন্ডিত ব্যক্তি হলেন,চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌর এলাকার টিকরামপুর রেহাইচর মহল্লার মো.মোজাহারের ছেলে কামরুল ইসলাম (৪৩)।

মামলার বিবরণে ও সরকারী কৌসুলী আঞ্জুমান আরা বেগম জানান, ২বছর পূর্বে বিয়ে হলেও পিতার বাড়ীতে একা বসবাসকারী ঘটনার শিকার ওই অন্ধ বিবাহিতা নারীকে দীর্ঘদিন ধরে কুপ্রস্তাব দিয়ে আসছিল ধর্ষক। এর এক পর্যায়ে গত ২০১৫ সালের ৩ আগষ্ট রাতে ঘুমিয়ে থাকা অবস্থায় লোহার জানালা ভেঙ্গে ওই নারীর ঘরে প্রবেশ করেন কামরুল।

পরে তিনি ওই নারীকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করেন। এসময় নারীর চিৎকারে প্রতিবেশীরা এগিয়ে আসলে কামরুল পরনের পোষাক,স্যান্ডেল ফেলে পালিয়ে যান। এদিকে ওই নারী অন্ধ হলেও ধর্ষককে কন্ঠস্বরে চিনে ফেলেন। এঘটনায় নারীর চাচাত ভাই দুদিন পর ৫ আগষ্ট সদর থানায় মামলা করেন।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা সদর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) আতাউর রহমান ওই বছরই ২৮ ডিসেম্বর কামরুল ইসলামকে একমাত্র অভিযুক্ত করে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। ৬ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ ও শুনানী শেষে আদালত রোববার মামলার রায় ঘোষণা করেন। আসামী পক্ষে ছিলেন আ্যাড.মাহবুবব আলম জুয়েল।

সময়ের কণ্ঠস্বর/ফয়সাল