সংবাদ শিরোনাম
গাজীপুরে দীর্ঘ সময় মর্গে লাশ ফেলে রাখার অভিযোগে হামলা এবং ভাংচুর, আটক-৩ | দুর্দান্ত খেলেও ভারতকে হারাতে পারলো না বাংলাদেশ | বুয়েটে বঙ্গবন্ধুর ছবি সম্বলিত ব্যানার থেকে মুছে ফেলা হলো ছাত্রলীগের নাম | ভারতের বিপক্ষে ১-০ গোলে এগিয়ে বাংলাদেশ | ‘বুয়েট ছাত্র আবরার হত্যাকারীদের মৃত্যুদণ্ড হওয়া উচিত’- কাদের | বড়পুকুরিয়া কয়লা খনির সাবেক ৭ এমডিসহ ২৩ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা | সাভার থেকে নিষিদ্ধ জঙ্গি সংগঠন হরকাতুল জিহাদের এক সদস্য আটক | পাবনায় ছেলের পাথরের আঘাতে বাবার মৃত্যু | বশেমুরবিপ্রবি’র প্রভোষ্ট ও বিভিন্ন অনুষদের চেয়ারম্যানসহ ৭ জনের পদত্যাগ | অবৈধ স্থাপনা সরাতে সাবেক সাংসদ উপজেলা চেয়ারম্যানসহ ৪ জনকে নোটিশ |
  • আজ ১লা কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

পুষ্টিহীনতা, রক্তস্বল্পতা সৃষ্টি করে কৃমি

৩:৫৬ অপরাহ্ণ | সোমবার, এপ্রিল ২, ২০১৮ মফস্বল সংবাদ

নবীগঞ্জ প্রতিনিধি:

হবিগঞ্জের নবীগঞ্জে কৃমি সপ্তাহ উদ্বোধনকালে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এডভোকেট আলমগীর চৌধুরী বলেছেন, পুষ্টিহীনতা, রক্তস্বল্পতা সৃষ্টি করে কৃমি। তবে কৃমি নাশক ট্যাবলেট খালি পেটে ৫ বছরের কম বয়সী শিশুকে খাওয়ানো যাবে না। এ বিষয়টি সব সময় খেয়ালে রাখতে হবে। তিনি আরো বলেন, কৃমি নিয়ে মানুষের মধ্যে এখনও এক ধরনের আশঙ্কা কাজ করে।

শিশুদের কৃমিনাশক যেসব ওষুধ খাওয়ানো হচ্ছে তা মানসম্মত। কৃমিনাশক ওষুধ খাওয়ার পর কোনো উপসর্গ দেখা দিলে আতঙ্কিত না হয়ে চিকিৎসকের কাছে যাওয়ার পরামর্শ দেন তিনি। গতকাল সোমবার সকালে উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগের আয়োজনে আর্দশ সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে কৃমি নিয়ন্ত্রন সপ্তাহ উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপরোক্ত কথাগুলো বলেন।

এসময় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নাজমা বেগম, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক সাইফুল জাহান চৌধুরী, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পঃ পঃ কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) ডাঃ আব্দুস সামাদ, মহিলা আওয়ামলীগের সভাপতি দিলারা হোসেন, সাংবাদিক সলিল বরণ দাশ, শিক্ষক আলী আমজদ মিলন, দৈনিক হবিগঞ্জ সময়ের বার্তা সম্পাদক মতিউর রহমান মুন্না, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি ইকবাল আহমেদ বেলাল, স্বাস্থ্য পরিদর্শক ইনচার্জ গোপেশ চন্দ্র দাশ প্রমুখ।

সারা দেশের ন্যায় নবীগঞ্জ উপজেলার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পর্যায়ক্রমে প্রায় ৯০ হাজার কৃমিনাশক ওষুধ সরবরাহ করা হবে। গতকাল আদর্শ বিদ্যালয়ের ৫শত ৫৮ জন শিক্ষার্থীদের ওষুধ খাওয়ানো হয়।