রাজীবের পর বাসের চাপায় তরুণীর পা বিচ্ছিন্ন, আবারও সেই বিআরটিসি !

সময়ের কণ্ঠস্বর- রাজধানীতে দুই বাসের রেষারেষিতে কলেজছাত্র রাজীবের হাত বিচ্ছিন্ন হয়ে মারা যাওয়ার সপ্তাহ না পেরুতেই এবার বনানীতে বিআরটিসির একটি বাসের চাপায় এক তরুণীর পা বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে।

ওই তরুণীর নাম রোজিনা। শুক্রবার রাত ৯টার দিকে বনানীর চেয়ারম্যানবাড়ি ফুটওভার ব্রিজের কাছে বিআরটিসির একটি দ্বিতল বাসের নিচে পড়ে তার ডান পা হাঁটু থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। আহত রোজিনাকে জাতীয় অর্থোপেডিক হাসপাতাল ও পুনর্বাসন প্রতিষ্ঠানে (পঙ্গু হাসপাতাল) ভর্তি করা হয়েছে। এঘটনায় জড়িত বাসচালক শফিকুলকে গ্রেফতার এবং বাসটি আটক করেছে পুলিশ।

ওই তরুণী সাংবাদিক সৈয়দ ইশতিয়াক রেজার বাসায় কাজ করতেন। ইশতিয়াক রেজা গণমাধ্যমকে জানান, রোজিনা মহাখালীতে তার এক আত্মীয়ের বাসায় বেড়াতে গিয়েছিল। সেখান থেকে গুলশানের নিকেতনে তাদের বাসায় ফেরার পথে এই দুর্ঘটনা ঘটে। দুর্ঘটনায় তার ডান পা উরু থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে।

ট্রাফিক পুলিশের মহাখালী জোনের এক কর্মকর্তা জানান, ওই তরুণী ফুটপাত থেকে নেমে রাস্তা পার হচ্ছিলেন। এ সময় মহাখালী থেকে কাকলীমুখী বিআরটিসির একটি দ্বিতল বাস তাকে ধাক্কা দেয়। পুলিশ সদস্যরা উদ্ধার করে তাকে হাসপাতালে নিয়ে যায়। বিআরটিসির ওই বাস এবং তার চালক শফিকুলকে আটক করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, গত ৩ এপ্রিল কারওয়ান বাজারে সার্ক ফোয়ারার কাছে দুটি বাসের প্রতিযোগিতায় হাত হারান রাজীব হোসেন। চিকিৎসাধীন অবস্থায় গত ১৬ এপ্রিল তিনি মারা যান। গত ৫ এপ্রিল নিউমার্কেট এলাকায় দুই বাসের প্রতিযোগিতার মাঝখানে পড়ে দুই পায়ের চলার শক্তি হারিয়েছেন আয়েশা খাতুন (২৫) নামের এক তরুণী। এছাড়া গত ১০ এপ্রিল ফার্মগেটে বাসচাপায় পা থেঁতলে যায় র‍্যাংগস প্রপার্টিজের অভ্যর্থনাকারী ও বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রী রুনি আক্তারের। দিনকে-দিন বেপরোয়া হয়ে উঠছে বিআরটিসি বাসের চালকরা। এত দুর্ঘটনার পরও বিআরটিসির বিরুদ্ধে কার্যকর কোন পদক্ষেপ না নেয়ায় জনমনে সৃষ্টি হয়েছে নানা প্রশ্নের।

সময়ের কণ্ঠস্বর/মহিআ

Leave a Reply